বরিশাইল্যা বউ । রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প

বরিশাইল্যা বউ

অফিস থেকে এসে খাওয়া দাওয়া করে একটু রেস্ট নিলাম আর একটু ফেসবুক চালাচ্ছি তো কিছুক্ষণ পর দেখি আম্মু আমার ঘরে আসলো আর বল্লো—->

আম্মু: বাবা এখন তো করে ফেল ?

আমি: ছি ছি আম্মু কি বলছো কি করে ফেলবো ?

আম্মু: হারামজাদা বিয়ের কথা বলছি ?

আমি: ওহ আচ্ছা আমি ভাবলাম কি না কি করে ফেলবো ?

আম্মু: তুই তো সারাদিনই অনেক কিছু ভাবিস এবার বিয়েটা করে ফেল ??

আমি: আম্মু কি যে বলো এখনো তো বড়ই হলাম না দেখো নাক টিপ দিলে দুধ পরবে ?

আম্মু: দেখ জাহিদ ফাইজলামি করবি না আর তুই এখনো ছোট আছিস নাকি সেই কবে পড়াশুনা শেষ হলো ভালো ও চাকরি ও করিস এখন যদি বিয়ে না করিস তাহলে করবি কবে বল ??

আমি: আম্মু তোমরা আমার এতো বিয়ে নিয়ে পরছো কেনো বলোতো বল্লাম তো বড় হয়ে নেই পড়ে বিয়ে করবো ||

আম্মু: তুই একটু বস তোর জন্য উপহার নিয়ে আসি ?

আমি: হ্যা আম্মু অনেক দিন ধরে উপহার পাই না যাও নিয়ে আসো|

অতঃপর আম্মু ঘর থেকে বের হয়ে গেলো আর আমি শুয়ে শুয়ে ফোন চালাচ্ছি কিছুক্ষন পর দেখি আমাকে কে জানো ঝাড়ু দিয়ে মারছে আর এটা আর কেও না আমার আম্মু পরে আমি বল্লাম—–>

আমি: এই ব্যাথা লাগছে তো ?

আম্মু: হারামজাদা বিয়ে করবি কি না বল ?

আমি: আজ একটা শিশুকে বিয়ে করানোর জন্য নির্যাতন করতেছো?

আম্মু: তুই বিয়ে করবি না তো তোর বাপ বিয়ে করবে ?

আমি: তা করালে করাতে পারো নতুন একটা মা আসবে |

তখন আম্মু রেগে গিয়ে বল্লো—–>

আম্মু: তাহলে থাক তুই একা কথায় ভাবলাম বাকি জীবনটা বউ নাতি নাতনির সাথে কাটাবো সেটা মনে হয় আর হবে না ||

অতঃপর রাগ করে চলে গেলো দূর আম্মু মনে হয়ে কষ্ট পেলো

[যাইহোক আপনাদের জানতে ইচ্ছা হচ্ছে আমি কে তাহলে বলি আমি জাহিদ পড়াশুনা শেষ করে একটা কোম্পানিতে জব করি আর যে এখন আমাকে বকা দিলো আর পিটালো এটা আমার আম্মু এখনো বিয়ে করি নিতো তাই উঠে পরে লেগেছে ]

যাইহোক এখন গল্পে আসি—->

অতঃপর দেখি আম্মু বসে আছে পরে আমি তার কাছে গিয়ে বসলাম আর বল্লাম—->

আমি: ও আম্মু……….|

আম্মু:…………|

আমি: ও আম্মু তুমি রাগ করলো জানো না আমার কষ্ট হয় ?

আম্মু: সর কথা বলবি না আমার সাথে যা |

আমি: আচ্ছা যাও আমি বিয়ে করবো এখন তো একটু হাসো ?

আম্মু: সত্যি তুই বিয়ে করবি ?

আমি: সত্যি তিন সত্যি এখন আর রাগ করে থেকো না |

আম্মু: আচ্ছা বাবা তুই বল এখন বিয়ে না করলে কি বুড়া বয়সে বিয়ে করবি বল ?

আমি: তাও ঠিক বলেছো তারাতারি বিয়ে করবো তারাতারি তোমাকে দাদি বানাবো ?

আম্মু: হাহাহা যা দুষ্টু আচ্ছা তোর কেমন বউ পছন্দ বল ?

আমি: তোমাদের যেটা পছন্দ হবে তাতেই আমি খুশি |

আম্মু: আজকেই তোর জন্য মেয়ে দেখবো গ্রামের?

আমি: গ্রামের কেনো ?

আম্মু: গ্রামের মেয়েরা খুব ভালো বুঝলি সহজ সরল এবং খুব সম্মান ও করে |

আমি: যেটা ভালো মনে করো তোমরা সেটাই করো |

অতঃপর রুমে চলে গেলাম কি আর করার বলুন জীবনে তো একটা প্রেম ও করতে পারলাম না তাই ভাবলাম বাবা মা যার সাথে বিয়ে দেয় তাকেই করবো |

অতঃপর কাল আম্মু বল্লো—->

আম্মু:দেখ তো বাবা মেয়েটা কেমন ?

আমি: টেবিলে রেখে দাও পরে দেখে নিবো |

তার পর আর দেখা হলো দূর একেবারে বাসর রাত দেখবো অতঃপর আমার বিয়ের দিন তারিখ শুরু হয়ে গেলো বিয়ে হবে শুক্রবার যাইহোক সুন্দর ভাবেই বিয়েটা হলো এখনো ঠিক মতো বউকে দেখতে পেলাম না |

তো আজ আমার বাসর রাত রুমে ডুকতে ভয় হচ্ছিলো অতঃপর আমার বন্ধুরা জোর করে রুমে ডুকিয়ে দিলো রুমে ডুকতেই দেখি আমার বউ আমার পায়ের উপর ঝাপিয়ে পরে সালাম করলো আমি তো ভয়ে পেয়ে গেলাম তখন আমি বল্লাম—>

আমি: হয়েছে হয়েছে হাজার বছর বেচে থাকো সেই দোয়া করি|

অতঃপর পায়ে সালাম করে চলে গেলো ঘাটে ঘোমটা দিয়ে বসে আছে তোখন আমি ওর পাশে বসলাম তখন ওকে বল্লাম—->

আমি: দেখি তো আমার বউ টাকে |

তখন ওর ঘোমটা টা শরালাম চেহারাটা ততটা সুন্দর না কিন্তু খুব মায়াবি চেহারা আসলে গ্রামের মেয়ে তো তখন ওকে আমি বল্লাম—->

আমি: আচ্ছা তোমার নাম কি ?

বউ: মোর নাম মোমেনা |

কিছুটা অবাক হলাম ভাবলাম অনেক সুন্দর নাম হবে |

যাইহোক তখন বউ কে আবার বল্লাম—->

আমি: জানো তোমার নামটা না অনেক সুন্দর?

বউ: ধন্যবাদ আমনেরে |

এবার তো আরো অবাক হলাম কি ভাষায়ে কথা বলে এগুলা তখন জিজ্ঞাসা করলাম—->

আমি: এই তুমি এভাবে কথা বলো কেনো ?

বউ: ওয়া কি মুই কেরোম কইররা কতা কইতে আছি আয়

এবার তো আমি আকাশ থেকে পড়লাম এরকম ভাষা কখনো শুনি ও না আমার মনে হয় ও আমার সাথে মজা করছে |

অতঃপর বউ কে বল্লাম—>

আমি: আচ্ছা তুমি মনে হয় আমার সাথে মজা করছো ?

বউ: হেইয়া কি কইতে আছেন আয় মুই আমনের লগে কিরফিন্নে তামাসা করতে জামু ?

আমি: আচ্ছা এটা কোন দেশের ভাষা ?

বউ: ওয়া কি আমনে মরে বিয়া হরছেন হেইয়া আমনে জানেন না মোর বাড়ি কম্মে ?

আমি: ব্যস্ততার কারনে আমি সব কিছু জানতে পারি নি তাছারা তুমি যে দেশেরই হও না প্লিজ শুদ্ধ ভাষায়ে কথা বলো ?

বউ: ও মুই পারমু না মোর বাড়ি বরিশাল হে মুই মোর গ্রাইম্মা ভাষা ছারা মুই কতা কইত পারি না |

এবার ওর কথা শুনে আমি বেহুস ঘাটেই অজ্ঞান হয়ে পরি তো কিছুক্ষন পর দেখি ওর কোলে আমার মাথা আর ও আমাকে পানি ছিটা মারছে আর আমার দিকে তাকিয়ে আছে |

অতঃপর ওর কোল থেকে সজা ওর কাছ থেকে সরে আসি আর বলছি—->

আমি: আচ্ছা আমি কি স্বপ্ন দেখছি ?

বউ: যাক আল্লাহর রহমতে মোর স্বামীর জ্ঞান ফিররা আইছে |

আমি: এই তুমি কিন্তু আমার কাছে আসবা না বলে দিলাম ?

বউ: হেইয়া কি কইতে আছেন আয় আমনে মোর স্বামী আমনের ছাড়া মুই থাকমু কেমনে ?

আমি: উফফ এ আমার কপালে কোন বউ আসলো এর কথা শুনলে আমার মাথা ঘুরায় |

বউ: মোর কোলে আহেন আমনের মাথাডা টিপ্পা দেই ভালো লাগবে আনে|

আমি: না তুমি আমার কাছে আসবে না |

বউ: ও কি মুই ঐলাম আমনের বউ তাছারা মুই কি দেখতে হনতে খারাপ আয় ?

আমি: না তুমি দেখতে শুনতে ভালো কিন্তু যেভাবে কথা বলো সেটা শুনলে আমার মাথা ঘুরায় এই আচ্ছা তুমি পড়াশুনা করো না ?

বউ: কেলাস ফাইব তামাইত পড়ছি হের পর পরতে পারি নাই |

আমি: কি মাত্র ভাইব আর তুমি কি না আমার বউ হায়রে পাগল হয়ে যাবো |

বউ: আমনের মায় কয় নাই আমনের মুই কি তামাইত পড়ছি ?

আমি: সেটাই তো আমার সব থেকে বড় ভুল কি জন্যে যে ভালোভাবে খোজ খবর নিলাম না |

এই দুঃখে মাথায় হাত দিয়ে বসে আছি আর হঠাৎ আমার বউ আমার পাশে এসে বসলো আর বল্লো—->

বউ: আহারে আমনে কানদেন না মুই আছি তো আমনের লগে ?

আমি: এই তুমি আবার আমার কাছে আসছো যাও এখান থেকে |

বউ: এহন কিন্তু মুই কাইনদা দিমু আনে আর মোর শাশুরি আম্মারে কমু আমনে মরে ঝাড়ুইদদা পিডাইছেন ?

আমি: হায় হায় এ মেয়ে দেখি পুরা শয়তানের হাড্ডি |

বউ: এ আমনে মোরে কি কইলেন ?

আমি: যা বলছি তাতে তুমি কি করবা ?

এইরে এটা বলার পর দেখি সত্যি সত্যি কান্না করে দিলো আর কান্না করে বল্লো—->

বউ: ও মোর শাশুরি আম্মা এম্মে আন আমনের পলায় মোরে মারছে|

আমি: এই থামো থামো প্লিজ ||

দূর কার পাল্লায় যে পরলাম এদেখি আরো বেশি কান্না করছে অতঃপর ওর মুখ চাপ দিয়ে ধরলাম আর বল্লাম—->

আমি: প্লিজ কান্না করবা না আমার আম্মু শুনলে আবার আমার কান্না করতে হবে যেভাবে ঝাড়ু দিয়ে পিটায় |

তখন আমার বউ একটু হাসি দিয়ে বল্লো—->

বউ: হাহাহা আমনের মায় এহনো আমনেরে পিডায় ?

আমি: হ্যা আমি যে তার মহা মান্য ছেলে তাই যাইহোক প্লিজ আমার আম্মুকে ডাক দিবা না |

বউ: তাইলে আমনে ওবাইল কইররা কতা কন ক্যা ?

আমি: আচ্ছা বলবো না ঠিক আছে ?

বউ: তয় এহন চলেন মোরা ঘুমামু এক লগে ?

আমি: কি আমি পারবো না তুমি একা ঘুমাও যাও আমি নিচে ঘুমাবো |

বউ: শাশুরি আম্মা…….|

আমি: এই আবার ডাকছো কেনো ?

বউ: তয় আমনে মোর লগে ঘুমাইবেন না ক্যা ?

আমি: না মানে আসলে |

অতঃপর ও আমাকে ধাক্কা দিয়ে খাটের উপরে ফালিয়ে দিলো আর আমার ঝাপ দিয়ে পরলো তখন ও বল্লো—->

বউ: কি এহন কম্মে জাইবেন ?

আমি: এই প্লিজ আমাকে ছেরে দাও ?

বউ: মুই কি আমনেরে ছাড়ার লইগগা বিয়া করছি ?

আমি: এই ছিলো আমার ভাগ্যে দূর ?

বউ: জানেন আমনের মুই পরথম দেইখখা ভালোবাইসসা লাইছি|

আমি: তোমার কথা শুনতে শুনতে আমার মাথা ব্যাথা করছে প্লিজ আমার উপর থেকে সরো |

যেই বল্লাম সেই আর শক্ত করে জরিয়ে ধরলো দেখলাম সাথে সাথে ঘুমিয়ে পড়লো ||

দূর বাসর রাত ভাবলাম কত মজা করবো আর আমার ভাগ্যে পড়ছে এক বরিশালের বউ এই জন্যই চাচ্ছিলাম না বিয়ে করতে কিন্তু কি আর করার আম্মুর জন্য করলাম যাইহোক সেই সাথে আমিও কখন যে ঘুমিয়ে পরলাম |

অতঃপর সকাল হলো দেখি কে জানো শরিরে পানি মারছে চোখ খুলে দেখি এটা আর কেও না আমার বউ তখন আমি বল্লাম—->

 

বরিশাইল্যা বউ Part-2

 

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *