বস যখন বউ part-10

  • বস বউ
    Sûmøñ Ãl-Fãrâbî
    Part_10


আমি খাটের উপর বসে আছি,,, পাপ্পি টা হজম করার চেষ্টা করছি,,
একটু পরে মুমু আবার আসলো,,,

“””” এই শোনো,,,
“””” হুম বলো,,,,
“””” কাল উনু বাইক নিতে আসবে ,,, আসলে চাবি দিয়ে দিয়ো,,,,
“””” আজিব তো কেন,,,,
“””” বাইক টা কিনে আপনার খুব পাখা গজিয়েছে তাই না ,,, বউকে রেখে অন্য মেয়েদের সাথে নিয়ে ঘুরতে যাও,,,
“””” কাকে নিয়ে ঘুরতে গেলাম আমি ,,,,
“””” আজ তুমি সারাদিন কই ছিলা,,,
“””” আজ তো মায়াকে নিয়ে ঘুরতে গেছলাম,,,
“””” তাই ,,,
“””” হুম ,,,
“””” আর কেউ ছিলো না তোমাদের সাথে ,,,,
“””” আর কে থাকবে ,,,,,
ওহহ,, না মানে ,,, নেহা ছিলো,,,,
“””” নেহা কে হয় তোমার ,,,,
“””” কলিগ,,,
“””” কলিগ কে সাথে নিয়ে ঘুরতে যেতে হয় এটা কোন সংবিধানে লেখা আছে
“””” না মানে ,,,
“””” থাক আর না মানে ইয়ে,,, এসব করতে হবে না,,,
কাল উনি আসবে ওনাকে চাবি দিয়ে দিবা,,,,
“””” কিন্তু,,,,
“””” কোনো কিন্তু নেই,,, আমি আজ পর্যন্ত উঠলাম না,,,
আর ও অন্য মেয়েকে নিয়ে ঘুরে,,,
“”” তুমি না উঠলে কি করবো???

এবার মুমু আমার সামনে এসলো,,,
এসে আমার কলার ধরে

“””” তুমি জানো না ,, তেমায় অন্য কোনো মেয়ের সাথে দেখলে আমার সহ্য হয় না,,,
হ্যাঁ যদিও বা প্রথম অবস্থায় তোমায় আমার সহ্য হতো না
কিন্তু এরপর থেকে কেনো জানিনা
তেমার প্রতি অনেক দুর্বলতা কাজ করে
নেহাকে যখন তোমার বাইকের পিছনে দেখি
আমার শরীর টা জ্বলে যায়,,,
ঐ দিন ক্যান্টিনে নেহার সাথে তোমাদের দেখে আমার প্রচুর রাগ উঠেছিলো,,,
এরপর নীলার সাথে তোমায় নাচতে দেখে ইচ্ছে করছিলো
নীলাকে কয়েক টা থাপ্পড় লাগিয়ে দেই,,,,
আজ আবার তুমি নেহার সাথে ঘুরতে গেছো,,,
তুমি কি বোঝো না আমার কষ্ট হয়,,,,

মুমু কথ গুলো একটানা বলেই গেলো,,,
আমায় কিছু বলার কোনো সুযোগ না দিয়েই ,,,

“””” তুমিও যে একটা ছেলের সাথে ডান্স করলা,,,
“””” সেটা তো তোমায় রাগানোর জন্য ,,,
কিন্তু তুমি কি করলা,,,
উল্টো আমাকেই রাগিয়ে দিলা,,,,
“””” ভালো বাসো আমায়,,,,

প্রশ্ন টা শুনে মুমু পিছনে ঘুরে দাঁড়ালো ,,,
কোনো কথা বলছে না
তবে আমি এটা বুঝতে পারছি
যে উত্তর টা পজিটিভ আছে,,,,

আমি বিছানায় বসে থাকা অবস্থা থেকে উঠলাম
বুকের মাঝে অনেক সাহস জমিয়ে
পিছনে থেকে মুমুকে জড়িয়ে ধরলাম,,,,
মুমু কিছুই বললো না ,,,,
একটু শক্ত করে ধরলাম,,,,

কিছু একটা বলতে যাবো
সেই সময় মায়া রুমে ঢুকে পড়লো
আমি মুমুকে জড়িয়ে ধরে আছি
কেমনডা লাগে ,,,,
তাড়াতাড়ি মুমুকে ছেড়ে দিলাম,,,

“””” সরি সরি,,, আমি কিছু দেখি নি,,,,
“””” তুই এখানে কেন??? তোকে আমি রুমে থাকতে বলে আসলাম না,,,,
“””” আমি কি জানতাম এখানে এখন রোমান্টিক সিন চলছে ,,,
জানলে আমি কি আসতাম নাকি,,,
“””” ঠিক আছে ,, এসেই যখন পরছো,,, কি আর করার,,, তো এখন আসার কারণ টাও বলে দাও,,,
“””” সুইট ভাইয়া আমার,,, আপু তোমার ফোনে অনিক ভাইয়া বার বার ফোন দিচ্ছে ,,,
“””” রিসিভ করার দরকার নেই ,, ফোনটা বন্ধ করে রেখে দে,,,
“””” আচ্ছা ,,,,

মায়া চলে গেল ,,,
আমিও খাটের উপর বসলাম ,,,
মুমি আমার সামনে দাড়িয়ে,,,

“””” বললে না যে,,,,
“””” ভালোবাস আমায়???

মুমু এবার আমার কাছে এসে ধাক্কা দিয়ে আমায় শুইয়ে দিলো,,,,
এবার ও আমার উপরে শুয়ে পরলো,,,
কারনে কাছে মুখটা এনে ফিসফিস করে বললো,,,

“””” ভালোবাসি,,, ভালোবাসি ,,, ভালোবসি ,,, অনেক বেশি ,,,,

আমিও ওকে আমার বুকের সাথে শক্ত করে বেঁধে নিলাম বাহুডোরে,,,

কিছু সময় কেউ কোনো কথা বললাম না
হয়তো ও আমার মাঝে আর আমি ওর মাঝে হারিয়ে গেছি,,,
একটু পরে একটা প্রশ্ন আমার মনে নাড়া দিয়ে উঠলল,,,

“”” আচ্ছা মুমু,,,
“””” হুম বলো,,,
“””” অনিক কেন জানি এখন আসে না ,, তুমি ওর সাথে কথাও বলছো না ,,,,
“””” তুমি ওর কথা বলবে না ,,,
“””” কেন???
“””” তুমি জানো ও কি বলছে আমায়,,,,
“””” কি বলছে ,,,,
“””” ও বলছে তোমায় ডিভোর্স দিতে ,,, ওর সাহস কত,,, তোমায় ডিভোর্স দিতে বলে,,,
“””” তাই জন্য ওর সাথে কথা বলো না ,,,
“””” হুম ,,,,
“””” পাগলীটা,,,,

মেয়েটাকে বাইরে থেকে দেখতে যতটা কঠোর লাগে
ঠিক ততটা না,,,
এর ভিতর একটা ছোট্ট শিশু লুকিয়ে আছে ,,,
ছোট্ট বাচ্চাদের মতো করে আমায় জড়িয়ে ধরে আমার বুকের উপর শুয়ে আছে,,,

এতদিন তো আমি এই দিনটার অপেক্ষায় ছিলাম,,,

“””” মুমু,,,,
“””” হুম ,,,
“””” চলো বাইরে কোথাও থেকে খেয়ে আসি,,,
“””” হুম চলো,,,,
“””” তুমি রুমে গিয়ে রেডি হয়ে নাও ,,, আর মায়াকেও রেডি হতে বলো,,,,
“”””” আর একটু থাকি না,,, জানো আমার অনেক শান্তি লাগছে,,,
খুব ঘুম পাচ্ছে,,,,
“”””” পাগলী,,, আমি তো হারিয়ে যাচ্ছি না,,,, চলো তাড়াতাড়ি গিয়ে খেয়ে আসি ,,,

রাগ করে আমার উপর থেকে উঠে হনহন করে ওর রুমে গেলো,,,,

তিনজন রেডি হয়ে পাশের একটা রেস্টুরেন্ট এ আসলাম
তবে সব থেকে আনন্দের ব্যাপার হচ্ছে
আজই প্রথম মুমু আমার বাইকে উঠলো,,,,
আজ বাইকটা চালিয়ে মনে হচ্ছে এক অন্য রকম
ফিলিংস পেলাম,,,,
।।
।।
খাওয়া শেষ করে বাসায় আসলাম
তিনজনই ড্রেস চেঞ্জ করে এসে টিভি দেখতে বসলাম

মুমু আমার থেকে একটু দূরে বসে আছে
কিন্তু মায়া আমার সাথেই বসে আছে
আমার কাঁদে মাথা রেখে ,,,
মুমু বার বার আমাদের দিকে তাকাচ্ছে
কিন্তু কিছু বলছে না ,,,
তবে বুঝতে পারছি কিছু একটা বলবে

“”””” মায়া,,,,
“””” হ্যাঁ আপু,,,,
“”””” তোর পড়া আছে না,,,,
“”””” হুম ,,,,
“”””” তো এখানে বসে কি করিস,,, যা পড়া শেষ কর,,,,
“”””একটু পরে যাই আপু,,,
“”””” এখনি যাবি,,,,, যা বলছি ,,,
“””” ওকে ,,, ভাইয়া চলো তো,,, আমায় একটু বুঝিয়ে দিবা,,,
“””” ও কি বুঝাবে,,,,
“””” আজকের পড়া গুলো একটু কঠিন,,,,
“”””” চল আমি তোকে বুঝিয়ে দিচ্ছি,,,,,
“”””” আচ্ছা ,,,

মুমু আর মায়া ওদের রুমে চলে গেল,,,,
আমিও আর একা একা টিভি ন দেখে
ছাঁদে চলে আসলাম
অনেক দিন হলো ভালো করে তারা ভরা আকাশ দেখা হয় না,,,


ছাঁদে দাড়িয়ে আকাশের দিকে তাকিয়ে আছি,,, হঠাৎ পিছনে থেকে কেউ এসে জড়িয়ে ধরলো ,,,,
বুঝতে বাকি রইলো না যে এটা আমার বস,,,
থুক্কু বউ,,,,

“””” তুমি এখানে??
“””” নিচে দেখলাম তুমি কোথাও নেই তাই ভাবলাম হয়তো ছাঁদে আছো,,,
“””” তুমি এতো তাড়াতাড়ি আসলে যে,,,,
“”””” হুম ,,,
“””” মায়াকে সব বুঝিয়ে দিছো,,,
“””” হুম ,,,
“””” ঘুমাবা না,,,,
“””” হুম ,,,,
“”” চলো,,,,

আমি আসতে ধরলাম,,,
মুমু পিছনে থেকে আমার হাত টেনে ধরলো,,,

“””” কিছু বলবে???
“””” আমি সরি সুমন ,,,
“””” সরি? কিসের জন্য ,,,
“””” তোমায় এতো দিন কষ্ট দেওয়ার জন্য ,,,

মুমুর কথা টা শুনে অনেক টা অবাক হলাম ,,,
তবে ওর কথা শুনে যতটা না অবাক হলাম তার থেকে বেশি অবাক হলাম ওর চোখে পানি দেখে,,,
লাইটের হালকা আলোয় স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে
ওর দুই গাল বেয়ে পানি ঝড়ছে,,,,

“””” এই পাগলী মেয়ে তুমি কাঁদছো কেন???
“””” তুমি সত্যি অনেক ভালো,,,
“”” তাই ,,,
“””” হুম ,,, কিন্তু অনেক পঁচা,,, অনেক বাজে,,,
“””” কেন? এসব বলছো,,,,
“”””তোমার মতো এতো ভালো একটা ছেলেকে এতো দিন কষ্ট দিয়েছি,,,,
“””কি যে বলো না,,, তুমি তো আমার অনেক লক্ষী একটা বউ,,,,
“””” কখনো ভুলে যাবে না তো,,,
“””কখনোই না পাগলী,,,,

পাগলীটা বাচ্চা গুলোর মতো এসে আমার বুকে মুখ লুকালো,,,
নিজেকে আজ পৃথিবীর সব থেকে সুখী মানুষ মনে হচ্ছে,,,
নিজের বউকে কাছে পেয়েছি,,,

এভাবেই গল্প আড্ডা দুষ্টু মিষ্টি ঝগড়া
নিয়েই একমাস চলে গেলো,,,
এই একমাস প্রতিটি দিন
সকাল বেলা আমি ওর কপালে চুমু দিয়ে ঘুম থেকে তুলছি
এরপর কোলে করে বাথরুমে নিয়ে দাঁত ব্রাশ করিয়ে দিয়েছি,,
এমন কি খাবার টাও আমি খাইয়ে দিতাম,,,

এই একমাসে হাতে ধরে ওকে রান্না শিখিয়ে দিছি,,,
আমার বউটা অনেক লক্ষী হয়ে গেছে ,,,
এখন ও নিজেই রান্না করে ,,,
প্রতিদিন ওর চুলে একটা গোলাপ গুঁজে দেওয়া
এটা যেন আমার অভ্যাসে পরিনত হয়েছে ,,,

এখন মুমু আর আমি দুজনেই অফিস দেখাশোনা করি,,,
আজ একটা অনেক বড় ডিল সাইন হলো,,
এই ডিল টাতে আমাদের অফিসের অনেক প্রোফিট আসবে ,,,
ক্লাইন্টদের সাথে মিটিং টা আমি করছি,,,
কারণ বড় বড় ক্লাইন্টদের সাথে
সচরাচর আমাকেই মিটিং করতে হয়
আমি নাকি খুব ভালো ইমপ্রেস করতে পারি,,,

মুমু অবশ্য আজ অফিসে যায় নি,,,
বাসায় এসে ফ্রেশ হয়ে মুমুর রুমে আসলাম
মায়া একা একা ফোনে গেমস খেলছে ,,,

“””” এই ছোট গিন্নি,, কি করো??
“””” তুমি আমার সাথে কথা বলবে না,,,
( অভিমানের সুরে)
“””” কেন গো??? আমার ছোট্ট গিন্নির কি হইছে,,,,
“””” এখন বউকে কাছে পাইছো না,,,, ছোট গিন্নির কথা কি আর মনে আছে
“””” কি যে বলো না ,,, তেমায় কি ভোলা যায় বলো,,,
“””” ভুলেই তো গেছো,,
“””” তাই ,,, কিভাবে ???
“””” কতদিন হলো,,, কোথও ঘুরতে যাই না,,,
“””” ওহহ এই ব্যাপার ,, আচ্ছা ,,, ঠিক আছে ,,, ঘুরতে যাবো ফ্রী হলে,,,
“””” সত্যি,,,
“””” হুম ,, , তোমার আপু কই???
“””” রান্না ঘরে ,,,
“”” আচ্ছা ,,,

রুম থেকে বের হয়ে রান্না ঘরে আসলাম

“””” আমার লক্ষী বউটা কি করে ???
“”” রান্না করছি দেখো না,,,,
“””” আহারে,,, বউটা আমার কতো কষ্ট করছে,,,
“””” হুম,,,, আমার বরটাও যে আজ অনেক কষ্ট করলো,,,
“””” হুম ,,,,
“””” ডিল সাইন হয়েছে ,,,,
“””” হুম ,,,
“””” তুমি বসো আমি খাবার দিচ্ছি ,,,,
“””” আমি এভাবে তোমায় জড়িয়ে ধরে থাকি???
“””” আচ্ছা ,,,

আমি মুমুকে পিছনে থেকে জড়িয়ে ধরে আছি
আর ও রান্না করছে ,,,
আমার কেন জানি না মনে হচ্ছে
মুমু বিরক্ত ফিল করছে ,,,
অন্য দিন গুলো তো এমন করে না,,,,

রাতে খাওয়া শেষ করে
একা একা ছাঁদে দাড়িয়ে আছি,,,
হঠাৎ পিছনে থেকে মুমুর শব্দ,,,

“””” কি করো,,,
“””” এই তো তারা গুনি,,, তুমি ঘুমাও নি,,,
“””” না,,, একটা কথা বলার ছিলো
“”” হুম বলো
“””” আমি দুই দিন অফিসে যাবো না,,,
একটু কষ্ট করে চালিয়ে নিয়ো তো,,,,
“””” আচ্ছা ,,, কিন্তু কেন যাবে না,,,
“””” এতো বড় একটা কন্ট্রাক্ট পেলাম
তাই বাসায় গিয়ে আব্বু আম্মুর সাথে মজা করবো দুই দিন,,,
“””” আচ্ছা ঠিক আছে

মুমু রুমে গেলো,,,,
আমিও কিছু সময় ছাদে থেকে রুমে এসে শুয়ে পড়লাম,,,,

প্রতিদিনের মতোই সকাল বেলা ঘুম থেকে উঠে
মুমুর কপালে একটা চুমু দিলাম,,,
কিন্তু ওকে আজ জাগাই নি,,,
কারণ ওতো আজ অফিসে যাবে না ,,,

ও ঘুমে থাকতেই মায়াকে নিয়ে
বের হলাম ,,
মায়াকে ওর কোচিং এ নামিয়ে দিয়ে আমি অফিসে গেলাম ,,,
ওহহ হ্যাঁ
ঐ দিন আমার বাইকটা বিক্রি করি নি,,,

দিনের বেলা অফিসে বিভিন্ন কাজে ব্যাস্ত থকার পরেও
কয়েক বার ফোন দিয়ে মুমুর খবর নেই ,,,,
মুমু ওর বাসায় চলে গেছে
তাই আজ একটু দেরী করেই বাসায় আসলাম,,,

“””” মায়া কি করছো???
“””” কিছু না,,, এখন রান্না করবো,,,
“”””” থাক রান্না করতে হবে না,,,,
“””” কেন???
“””” দুজন বাইরে গিয়ে খেয়ে আসবো এখন ,,,
“””” আচ্ছা,,, তুমি ড্রেস টা চেঞ্জ করে নাও,,,,
“”‘” হুম ,, ,

আমি ড্রেস চেঞ্জ করে মায়াকে বাইকে নিয়ে একটা রেস্টুরেন্টে গেলাম,,,
রেস্টুরেন্টে ঢুকেই আমার চোখ আটকে গেলো,,,
মুমু আর অনিক,,,

কিন্তু মুমু তো বলেছিলো অনিকের সাথে ওর কোনো
যোগাযোগ নেই ,,,
তাহলে কি ও আমায় মিথ্যা বলেছিলো,,,,

আমি আর মায়া ঠিক মুমুরা যে টেবিলে বসেছে
তার পাশের টাতেই বসলাম
কিন্তু মুমু আমাদের দেখতে পায় নি,,,
মায়া যদিও বা প্রথমে মুমুকে
ডাকতে চেয়েছিল
কিন্তু আমি ওকে বাঁধা দেওয়ায় ও আর ডাকে নি,,,,,


মুমু আর অনিক যেসব কথা বলছে তা সব শোনা যাচ্ছে,,,

“”””” যাই হোক,,, অবশেষে আমরা কন্ট্রাক্ট টা পেলাম ,,,, ( অনিক)
“”””” হুম,,,, ( মুমু)
“””” তোমার বোকা বরটা না হলে তো সম্ভব হতো না,,,,
“”””‘ হুম,,,, মাঝে মাঝে অবাক হয়ে যাই মানুষ এতো বোকা হয় কিভাবে,,,,
“””” হুম ,,, তুমি ওর প্রেজেন্টেশন টা দেখছো
“””” না,,,
“”””” আমি দেখছি,,,, একটা মানুষ কি করে এতো সুন্দর করে প্রেজেন্টেশন করতে পারে,,, ওর জায়গায় অন্য কেউ হলে আমরা এটা পেতাম না,,,,
“””” তাই জন্য তো আমাদের এই মাষ্টার প্ল্যান করা,,,,
“””” হুম ,,,,

মাষ্টার প্ল্যান ,,,
ওহহ,,,
হয়তো কন্ট্রাক্ট টা পাওয়ার জন্য বাইরের কারো সাথে প্ল্যান করছে ,,,

কিন্তু না
এরপর আমি যা শুনলাম
তাতে আমি আমার নিজের কানকে বিশ্বাস করতে পারছি না,,,,

.
..

….

..
.
To be continue

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *