বস যখন বউ part-5

বস বউ
Sûmøñ Ãl-Fãrâbî
Part_5

বস যখন বউ part-4

বেশি কিছু না ভেবে মুমু কে কোলে তুলে নিলাম ,,,
মুমু কিছু টা অবাক হয়ে গেল ,,,
ও হয়তো এটা আশা করে নি,,,,
কোলে করে নিয়ে ছাঁদে আসলাম ,,,
মুমু আমার মুখের দিকে তাকিয়ে আছে,,,

ইশশ সারা জীবন যদি মুমু এমন অসুস্থ
থাকতো তাহলে আমি সারাটা জীবন ওকে এভাবে ভালোবেসে যেতাম ,,,

মুমু সারাটা দিন ছাঁদে দোলনায় বসে ছিলো,,,
আর আমি ওর পাশে ছিলাম,,,
আমি সব সময় শুধু ওর সাথে বকবক করে গেলাম
আর ও শুনে গেলো,,,
মাঝে মাঝে কেমন জানি অদ্ভুত দৃষ্টিতে আমার দিকে তাকাতো,,,
যখন ওর মায়াবী দৃষ্টিতে আমার দিকে তাকায়
কেন জানি না বুকের ভিতরটা কেমন করে ওঠে ,,,

দুপুরের খাবার রান্না করার জন্য আমি নিচে আসলাম
হঠাৎ মুমুর নাম্বারে একটা নাম্বার থেকে ফোন আসলো,,,

“””” হ্যালো ,,,,

একটা ছেলের কন্ঠ,,,

“””” আসসালামু আলাইকুম,,,
“””‘ কে???
“””” মুমুর স্বামী ,,,
“””” হাহাহা,,, তুমি ??? তোমায় তো মুমু স্বামী হিসাবে মানেই না,,,
“””” সেটা আমাদের বেপার,,, আপনি কেন ফোন দিছেন,,,,
“””” মুমুর সাথে কথা আছে ,,,
“””” ও অসুস্থ,,,, এখন কথা বলতে পারবে না,,,
“””” আচ্ছা ,,, ওকে বলিও অনিক ফোন দিছলো,,,
“””” আচ্ছা ,,,

ফোনটা কেটে দিয়ে ফোনটা নিয়ে ছাঁদে গেলাম ,,

“””” মুমু,,,
“”” হুম,,,,
“”” অনিক নামে একজন ফোন দিছলো ,,,,
“””” ওহহহ,,, ফোনটা দাও,,,

মুমুর হাতে ফোনটা দিয়ে আমি নিচে এসে রান্না করলাম ,,,

রান্না শেষ করে একটা প্লেটে করে নিয়ে আসলাম মুমুর জন্য,,,,
এসে দেখি মুমু এখনো কথা বলছে ,,,
অথচ একটু আগে
আমি একাই বকবক করে গেলাম
ও একটা কথাও বলে না ,,,
শুধু হুম , হুম ,, ছাড়া ,,,

“””” তোমার জন্য খাবার নিয়ে আসছি ,,,
“””” তুমি খেয়ে নাও ,,, অনিক আমার জন্য পিজ্জা নিয়ে আসবে ,,,
“””” তুমি অসুস্থ ,,, এখন বাইরের খাবার না খাওয়াই ভালো হবে ,,, আর ওসব তো পরে অনেক খাইতে পারবে,,,,,
“””” আচ্ছা ঠিক আছে ,,, আমি না করে দিচ্ছি,,,,

মুমু অনিক কে না করে দিয়ে ফোনটা কেটে দিলো ,,,
খুব ইচ্ছে করছে ওকে খাইয়ে দিতে ,,,
বলবো কি???
না থাক,, আবার কি না কি মনে করে,,,

মুমু খাচ্ছে আমি ওর দিকে তাকিয়ে আছি ,,,
কোনো কথা বলছে না,,,
একটা বার জানতেও চাইলো না যে
আমি খাইছি না কি???

“””” একটা কথা বলবো,,,,

আমার কথা শুনে ও আমার দিকে তাকালো ,,

“””” হুম বলো,,,
“””” তোমার আমার সাথে কথা বলতে ইচ্ছে করে না তাই না ,,,
“””” ঠিক তা না,,, কিন্তু তোমার সাথে কি কথা বলবো সেটাই খুঁজে পাই না,,,,
“””” ওহহহ,,, একটা অনুরোধ করবো,, রাখবা???
“””” হুম ,,,
“”’ একটু পরে আম্মু আসবে ,,,, এমন কোনো কাজ করিও না যাতে মনে কষ্ট পায়,,,, আমি কোনো দিন তাদের মনে কষ্ট দেই নি,,, তাই আমি চাই আমার বউয়ের জন্য ও যেন কষ্ট না পায়,,, প্লিজ ,,,,
“””” ওকে ,,,,

আমি উঠে চলে আসছি,,,
যার সাথে কথা বলার জন্য আমি প্রতিটি সময়
সুযোগ খুঁজে বেড়াই,,,
সে নাকি আমার সাথে
কি কথা বলবে সেটা খুজেই পায় না,,,

প্রিয় মানুষের সাথে বলার জন্য অনেক কথা থাকে
কিন্তু আমি তো আর ওর প্রিয় মানুষ না ,,,,,
শুধু শুধু কষ্ট পেয়ে লাভ নাই ,,,,
আর মনটাও খুব বেহায়া,,,,
সেই জিনিসটাই সব থেকে বেশি চাইবে
যেটা কখনো পাবে না ,,,,

বিকেলে আব্বু আর আম্মু আসলো,,,
এসে তো মুমু কে দেখে তারা খুবই খুশি
কারণ মুমু ঠিক পরীর মতোই,,,,
আমি শুধু শুনছি পরীরা নাকি অনেক সুন্দরী হয়
কিন্তু কখনো পরী দেখার সৌভাগ্য হয় নি

“””” হারামজাদা এতো সুন্দর একটা মেয়ে তার যত্ন নিতে পারিস না,,,, ( আম্মু)
“””” আমি কি করছি ,,,,
“””” তুই তো বৃষ্টি তে ভিজিয়েছিস,,,,
“””” আমি ??? মোটেই না,,,,
“””” শোন তোরে আমি ভালো করেই চিনি,,,,
“””” হুম ,,,,
.

এরপর কয়েক দিন আব্বু আম্মুর সাথে
খুব ভালোই কাটালো মুমু,,,
মুমুর জ্বর সুস্থ হতে প্রায় চার দিন লাগলো,,,
এই চার দিনে আম্মু আব্বুর সাথে মুমুর
খুব ভালো একটা সম্পর্ক গড়ে উঠেছে,,,

আজ এক সপ্তাহ হচ্ছে,,,
বুঝতেই পারলাম না
এই মেয়ের সাথে কিভাবে আম্মু আব্বুর এত ভালো সম্পর্ক হলো,,,

আজ আম্মু আব্বু বাসায় যাবে ,,,

“””” মুমু তুমি ও চলো আমাদের সাথে ,,,, ( আম্মু )
“””” অফিসে অনেক কাজ আছে ,,, অফিসের দায়িত্ব নিতে হবে ,,,,
“””” সেটা তো তুমি এসেও নিতে পারবে ,,,, কয়েক টা দিনের তো ব্যাপার ,,, ( আব্বু)
“””” এতো করে যখন বলছে তখন যাও না,,,,, ( আমি )
“””” আচ্ছা ঠিক আছে ,,,,

সবাই রেডি হচ্ছে ,,,
আমার ও বাসায় যাওয়ার জন্য ইচ্ছে করছে
ইশশশ একবার যদি বলতো আমায় সাথে যাওয়ার জন্য,,,
কিন্তু কেউ একবারের জন্য ও বললো না
মনটাই খারাপ হয়ে গেল ,,,

বাসা থেকে বের হওয়ার আগে শ্বশুর মশাই আসলো ,,,,

“””” সুমন তুমি রেডি হও নি,,,, ( শ্বশুর)
“””” আমি কই যাবো,,,,
“””” বাসায় যাবে না ,,,,
“””” অফিসে এতো কাজ আপনি একা সামলাতে পারবেন না,,,,

মনে মনে ঠিকই লাফাচ্ছি

“”””” সেটা আমি ম্যানেজ করে নিবো,,, বেয়াইন সুমনকে নিয়ে যাবেন না ,,, ( আব্বুকে বললো)
“””” কি রে এখানো রেডি হইস নি,,, তোকে কি এপ্লিকেশন পাঠাতে হবে,,,,
“””” আমি গিয়ে কি করবো,,,,
“””” নতুন বউ,,, নতুন একটা জায়গায় একা কিভাবে থাকবে ,,,,
“””” আচ্ছা আমি রেডি হচ্ছি,,,

কি যে ভালো লাগে ,,,
খুশিতে লাফাইতে ইচ্ছে করছে ,,,

আপনারা থাকেন আমি বাসা থেকে ঘুইরা আসি,,,,

এখন আমরা বাসে বসে আছি আমার পাশে মুমু বসে আছে ,,, মুমুর যদিও বা বাসে ওঠার অভ্যাস নেই,,,
বড়লোক বাপের একমাত্র অকর্মা না মানে আদরের মেয়ে তো,,, ,

মুমুর মুখের দিকে তাকিয়ে বুঝতে পারছি ওর ভালো লাগছে না ,,,,
মুখটা কেমন বাংলা ৫ এর মতো করে রাখছে,,,

“””” কোনো সমস্যা ???
“””” তেমন কোনো সমস্যা নেই,,, তবে এই প্রথম বাসে উঠলাম ,,, তাই কেমন জানি লাগছে
“”” ওহহ,,, জানালার পাশে বসবা???
“””” হুম ,,,

মুমুকে জানালার পাশের সিট দিয়ে আমি এপাশে এসে বসলাম ,,
ভালোবাসা সত্যি মানুষকে অনেক পাল্টে দেয়,,
যে আমি কোনো কিছুর বিনিময়ে জানালার পাশের সিট ছাড়তাম না
সেই আমি আজ নিজে থেকে মুমুকে জানালার পাশের সিটে বসতে দিলাম,,,,

মুমু আপন মনে জানালা দিয়ে বাইরে তাকিয়ে আছে ,,,
আমি ওর সাথে কথা বলতে চাচ্ছি,,,,
কিন্তু কি বলবো সেটাই খুঁজে পাচ্ছি না ,,,
হঠাৎ ঐদিনের পার্কের কথা মনে পড়লো,,,,

“””” মুমু,,,,
“””” হুম
“””” একটা কথা জিজ্ঞেস করি,,,,
“””” হুম বলো,,,,
“””” কিছু মনে করবা না তো,,,,
“””” না,,, বলো,,,,
“””” ঐ দিন পার্কে তোমার সাথে উনি কে ছিলো ???
“””” ও অনিক,,, আমার খালাতো ভাই ,,,, বিয়েতে আসে নি তো তাই দেখা করতে এসেছিলো,,,, কেন???
“””‘ না,,, এমনি জানতে চাইলাম ,,,

তারমানে ঐটা ওর ভাই ,,,
কি যে ভালো লাগে ,,,
আজ আমার মনটা যে তা পেখম মেইলা নাচে রে,,,,

আমার বাসা যেতে প্রায় পাঁচ ঘন্টা সময় লাগে ,,,
অনেক দূরের রাস্তা ,,,

মুমু বাইরে দেখছে ,,,
আমি কথা বলতে চাচ্ছি
কিন্তু ঐ কথা শুনে এতটাই খুশি হয়েছি যে
খুশির ঠেলায় সব কথা গোলমাল পাকিয়ে গেছে ,,,

মাথা নিচু করে ফোন গুতোচ্ছি,,,
হঠাৎ মুমুর দিকে চোখ যেতেই দেখলাম
ও জানালার উপর একটা হাত রেখে
হাতের উপর মাথা রেখে ঘুমিয়ে গেছে ,,,,

হালকা বাতাসে সামনের কিছু চুল বারবার ওর মুখের উপর আসছে
এই অবস্থায় যে কোনো কবি ওকে দেখলে অনায়াসে
কয়েক লাইন কবিতা লিখে ফেলতো,,,

মুমুকে জানালার পাশে থেকে একটু এদিকে নিয়ে আসলাম ,,,
এসে সিটের মাঝে পুরোপুরি বসিয়ে দিলাম,,,, ,,,,
একটু পরে মুমু আমার কাঁধে মাথা রাখলো,,
কাঁধে মাথা রেখে
আমার হাত জড়িয়ে ঘুমিয়ে পড়লো,,,

প্রায় সন্ধ্যা ,,,
আমাদের বাসার বাস স্টান্ডে এসে বাস থামলো,,,
মুমুর দিকে তাকালাম
মুমু এখনো ঘুমিয়ে আছে,,,,
কেন জানিনা খুব লোভ হচ্ছে
ওর কপালে একটা ভালোবাসা একে দিতে ইচ্ছে করছে
লোভটা সামলাতে পারছি না
অবশেষে কপালে একটা চুমু দিয়েই দিলাম,,,
মুমু একটু নড়লো,,,
ভাবলাম এই বুঝি বুঝতে পারলো
যদি বুঝতে পারে তবে যে একটা আঝাড়া খাবো
সেটাতে সন্দেহ নেই,,,

একটু অপেক্ষা করলাম,,,
কিন্তু না,, মুমু বুঝতে পারে নি,,,
এবার মুমুকে ডাকলাম ,,,

“”” মুমু,,, এই মুমু,,,
“””” হুম ,,,
“””” ওঠো,,, চলে আসছি তো,,,,
“””” আর একটু পরে ,,,

হায় হায় কয় কি ,,,
আর একটু পরে নাকি উঠবে ,,,,
মনে হচ্ছে বাসায় শুয়ে আছে

আব্বু কে ডাকলাম ,,,
আব্বু ওকে কোলে নিতে বললো,,,,

এরপর ওকে কোলে তুলে নিলাম ,,,

এখন রাত,,,
বাসায় এসে ফ্রেশ হয়ে
সবাই ড্রয়িং রুমে বসে আছি
সবাই বলতে আব্বু আর আমি ,,,

আম্মু আর মুমু রুমে,,,

একটু পরে শাড়ি পড়া দুইটা পরী আসলো,,,
দেখে আমি আর আব্বু দুজনেই বসা থেকে দাঁড়ালাম
সত্যি অপূর্ব লাগছে ,,,

“””” কি হলো,,, হা করে কি দেখো??? ( আম্মু)
“””” আপনারা কে??? ( আব্বু)
“””” হইছে আর ঢং করতে হবে না,,, আসো খাবে,,,
“””” রান্না করলা কখন ,,,
“””” ঐ বাসা থেকে রান্না করে নিয়ে আসছি ,,,

আব্বু আম্মু মুমু খেতে গেলো,,,
কিন্তু আমি এখনো দাড়িয়ে আছি
শাড়ি পড়ে মুমুর ঘোর কাটাতে পারছি না

“””” কি রে হারামজাদা ,, দাঁড়িয়ে থাকবি না কি খেতে আসবি,,,

আম্মুর মহান উক্তি তে ঘোর কাটলো

“””” আসছি ,,,,

খাওয়া করে রুমে আসলাম ,,,
অনেক দিন পর আজ হঠাৎ গিটার টার দিকে চোখ গেলো,,,
মুমুও আব্বু আম্মুর রুমে ,,,
তাই গিটার টা নিয়ে ছাঁদে আসলাম ,,,

একটা সময় ছিলো যখন রোজ রাতে
ছাঁদে বসে গিটার প্লে করতাম ,,,

চোখ বন্ধ করে গিটার এর সুরের মাঝে ঢুকে যাচ্ছি
একটা সময় খেলায় করলাম আমার পিছনে কেউ দাঁড়িয়ে আছে ,,,
পিছনে তাকাতেই দেখি মুমু,,,,
মুমুকে দেখে আমার খুব ভালোই লাগলো,,,
ও আমার দিকে মুগ্ধ দৃষ্টিতে তাকিয়ে আছে
আমার গিটারের সুর হয়তো ওর মনে জায়গা করে নিয়েছে ,,,
তাই প্রশংসা করতে এসেছে ,,
এর আগে যদিও বা অনেকে প্রশংসা করেছে,,,
তবুও আজ নিজের বউ করবে,,,
ভাবনাটাই আলাদা,,,,
ফিলিংস খুশি 

“””” এতো রাতে কি শুরু করছো??? ঘুমাতে দিবা না নাকি ,,,,

কি ভাবলাম আর কি বলে,,,

“””” এভাবে কেউ গিটার বাজায়,,,, আশেপাশের মানুষের ঘুম নষ্ট করার প্ল্যান করছো তাই না,,, আগে গিটার প্লে করা শিখবা তারপর বাজাবা,,,

ভাবলাম প্রশংসা করবে
এসে ঝাড়ি দিয়ে গেলো,,,
এমন টাটকা অপমান জীবনেও হইনি,,,
কেমনডা লাগে আপনারাই বলেন
.
..

….

..
.
To be continue

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *