বস যখন বউ part-8

  • বস বউ
    Sûmøñ Ãl-Fãrâbî
    Part_8


টিভি লাইট সব কিছু অন রেখেই মুমু সোফায় বসে ঘুমিয়ে পড়ছে ,,,,
মুমুর মাথার কাছে এসে বসলাম
ওর মাথাটা কোলে নিলাম,,,,
চুলগুলো তে হাত বুলিয়ে দিচ্ছি,,,
ভালোই লাগছে,,, আসলে মেয়েদের সবথেকে যে জিনিস টা আমার বেশি ভালো লাগে সেটাই হলো চুল ,,,
ইশশশ সব সময় যদি এভাবে চুল গুলো বুলিয়ে দিতে পারতাম,,,

হঠাৎ করে মায়া আসলো,,,

“””” তুমি এখনো ঘুমাও নি,,,,
“””” না,,, তোমরা তাহলে এখনে বসে রোমাঞ্চ করছ,,,,
আর আমি ভাবছি আপু এখনো আসছে না কেন ,,,,
“””” তুমি কি এখন ঘুমাবে???
“””” হুম ,,,,
“””” তোমার আপু তো ঘুমাইছে,,,
“””” হুম ,,, রুমে দিয়ে যাও,,,,
“””” কিভাবে???
“””” কোলে করে,,, তাছাড়া আবার কিভাবে,,,,
“””” তোমার আপু রাগ করবে,,,,
“”” কি যে বলো না,,,, রাগ কেন করবে,,,, আমি তো সব সময় চাই ,,, আমার স্বামী যেন কোলে করে আমায় রুমে নিয়ে যায়,,,
“””” বিয়ের আগেই এতো কিছু ভেবে রাখছো,,,,
“””” হুম
“””” চলো তোমার আপুকে রুমে দিয়ে আসি,,,

এরপর মুমুকে কোলে করে রুমে দিয়ে আসলাম,,,

সকাল বেলা ঘুম থেকে উঠে রান্না ঘরে যাবো
ঠিক তখন মায়া পিছনে থেকে ডাকলো,,,

“””” ভাইয়া,, ,
“”” মায়া তুমি,, এতো তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে উঠছ,,,,
“””” শুধু ঘুম থেকে উঠি নি,,, তোমাদের সাথে জন্য নাস্তা তৈরি করছি ,,,
“””” এটা করতে গেছ কেন,,,,
“””” আমার রান্না খেয়ে দেখো না,,, কেমন লাগে ,,,,
“”” হুম ,,,, তোমার আপু উঠছে ,,,
“””” হুম ফ্রেশ হয়ে আসছে ,,,

একটু পরে মুমু আসলো,,,
তিনজনে বসলাম ,,,

“””” ভাইয়া কেমন হয়েছে আমার রান্না ,,,
“””” অনেক সুন্দর ,,,, তোমায় তো এখন বিয়ে দেওয়া উচিত ,,,
“””” কি যে বলো না,,,
“””” ওমা,,,, এ দেখি আবার লজ্জা ও পায়,,,,
“””” হুম ,,, একটা কথা বলি,,,,
“””” হুম সিয়র,,,,
“””” কাল থেকে রাতের রান্না তুমি করবে আর সকালের আমি ,, যতদিন আমি আছি ,,,,
“””” তোরে বলছি না খাওয়ার সময় বকবক করবি না,,,, আর তোকে এখানে পড়তে পাঠিয়েছে,,, রান্না করতে না,,,, যার কাজ সে করবে ,,,

মায়া চুপ হয়ে গেলো,,,
বুঝতে পারলাম ও খুব ভয় পাইছে ,,,
মাথা নিচু করে আড় চোখে আমার দিকে তাকালো ,,,
আমি ওকে ইশারায় বললাম ঠিক আছে তুমি যা চাও তাই হবে ,,,
মায়ার মুখে হালকা হাসির আভা ফুটে উঠলো ,,,

রেডি হয়ে প্রতি দিনের ন্যায় আজকেও দাঁড়িয়ে আছি
শুধু মুমু আমার সাথে অফিসে যাবে এই আশায়,,,

মুমু আর মায়া বের হলো,,,

“””” ভাইয়া চলো,,,
“””” তুমি কই যাবে,,,,
“””” তোমাদের অফিসে যাওয়ার রাস্তায় আমার কোচিং,,,,
“””” ওহহহ,,, আচ্ছা ওঠো,,,

মায়া বাইকে উঠে বসলো,,,

“””” মায়া তোকে আমি বাইকে উঠতে বলছি???
“””” কেন আপু,, বাইকে যাবো না আমরা ???
“””” না,,, অনিক আসবে,,, ওর সাথে যাবো,,,
“””” না,,, আমি ওর সাথে যাবো না ,,,, তুমি ওর সাথে যাও,,, আমি ভাইয়ার সাথে যাবো,,,,

মুমু রেগে গিয়ে কিছু বলবে সেই সময় আমি বললাম,,,

“””” যাক না আমার সাথে ,,,, তুমি না হয় ওর সাথে যাও,,,

সেই সময় অনিক গাড়ি নিয়ে হাজির,,,,
মুমু কিছু না বলেই গাড়ি তে উঠলো,,,

মায়াকে নিয়ে গল্প করতে করতে যাচ্ছি ,,,
হঠাৎ মায়ার কোচিং চলে আসে ,,,,
ওকে কোচিং এ নামিয়ে দিয়ে আবার অফিসের দিকে এগোতে লাগলাম,,,
মজার ব্যাপার হলো
মায়ার কোচিং থেকে কিছুটা সামনে নেহা থাকে ,,,

আজকেও নেহা দাঁড়িয়ে আছে ,,,
আজকেও নেহাকে নিয়ে অফিসে আসলাম ,,,

অফিসে এসে কেবিনে ঢুকতেই পিয়ন এসে হাজির

“””” কিছু বলবে ???
“””” ম্যাডাম আপনাকে ডাকে,,,
“””” একটু পরে যাচ্ছি ,,,,
“””” এখনি যেতে বলেছে,,,,
“””” হঠাৎ এতো তাড়া ,,, আচ্ছা আসছি

ম্যাডামের রুমের আসলাম ,,,

“””” আসবো ম্যাম,,,
“””” হুম ,,,,
“””” ডাকছিলেন ম্যাম,,,,
“””” মায়া কে ঠিক ভাবে নামিয়ে দিয়েছেন ???
“””” হুম,,,,
“””” আপনি কি বাইক কিনছেন জনদরদী হওয়ার জন্য ,,,
“””” বুঝলাম না ,,,
“””” বুঝবেন ও না,,,,

বুঝি বুঝি
সবই বুঝি,,,
এখন ম্যাডাম জ্বলে ,,,

“”” আমি কি যাবো ম্যাম???
“””” এই ফাইল গুলো চেক করে নিয়ে আসুন ১ ঘন্টার মধ্যে ,,,
“””” কিন্তু ম্যাম,,, এগুলো চেক করার জন্য তো মানুষ আছে ,, আর এগুলো চেক করা তো আমার কাজ নয়,,,,
“””” কলিগ কে বাইকের পিছনে করে নিয়ে বেড়ানোও আপনার কাজ না,,,,
“””” যাকে নিয়ে বেড়ানো আমার কাজ সে যদি না ওঠে তবে আমি কি করবো???
“””” মানে ???
“””” কিছু না ,,,,
“””” তাড়াতাড়ি গিয়ে ফাইলগুলো চেক করুন ,,,
“””” হুম ,,,

রেগে গিয়ে আমার উপর পেসার দেওয়া হচ্ছে ,,,
কি আর করার অফিসের বস বলে কথা
মানতেই হবে ,,,

ফাইলগুলো নিয়ে কেবিনে আসলাম,,,
এতোগুলা ফাইল ,,,
দেখেই তো মাথা লাটিমের মতো ঘুরছে,,,

ফাইল গুলো চেক করছি,,,

“””” আসবো???
“””” মিস নেহা,,,, আসুন ,,,,
“””” কি করছেন ???
“””” এইতো ম্যাম এই ফাইল গুলো চেক করতে দিলো,,,,
“””” আপনি চাইলে আমি আপনাকে হেল্প করতে পারি,,,
“””” কিভাবে ???
“””” অর্ধেক আমি চেক করে দিয়ে,,,,
“””” তাহলে তো ভালোই হয়,,,, এই নেন,,,,

দুজনে মিলে একসাথে গল্প করছি
আর ফাইল দেখছি ,,,
প্রায় সব ফাইল দেখা শেষ,,,,
হঠাৎ করে মুমু আমার কেবিনে এসে হাজির ,,,
নেহাও আমার সামনে বসে আছে

মুমু হাসতে হাসতে রুমে আসলো,,,
এসেই মুখটা আগুন দিয়ে ভরে গেলো,,,

“””” কি হচ্ছে এখানে ???
“”””” ফাইল গুলো চেক করছি ম্যাম,,,,
“””” মিস নেহা,,, আপনার কাজ নেই ???
“””” আমার ফাইল গুলো তো জমা দিয়ে দিছি,,,,
“”””” মি. সুমন,,, আপনি এখনি আমার কেবিনে আসুন , জরুরি দরকার আছে

মুমু চলে গেল ,,,
আমি জানি তো কি বলবে
কয়েকটা ঝাড়ি দিবে আর কি,,,,

বউ থুক্কু বসের রুমে গিয়ে কিছু ঝাড়ি খেয়ে আসি,,,
ঝাড়ি খাবো এটা সিয়র,,,,
কিন্তু কোন দোষে খাবো সেটা জানি না,,,

“””” আসবো ম্যাম,,,
“””” আসুন ,,,

রুমে ঢুকে একটা চেয়ারে বসে পড়লাম ,,,

“””” আপনাকে আমি বসতে বলেছি???
“”” থুক্কু,, না মানে সরি ম্যাম,,,

আমি দাড়ালাম,,,
এরপর মুমু আমার সামনে আসলো,,,
কিছু বলতে যাবে,,,
কিন্তু না,,,
কিছু না বলেই আমার পিছনে গেলো,,,
গিয়ে দরজা আটকে দিলো,,,

কি হলো এটা???
দরজা আটকালো কেন???
কোনো বাজে মতলব আছে নাকি আবার,,,
আমি কিন্তু চিৎকার করবো যদি কিছু করে ,,,
আমি এখনো পিয়র ভর্জিন,,,

আরে,,,,
আমি এসব কি ভাবছি ,,,
দুনিয়ায় যতো উল্টো পাল্টে ভাবনা আমার মাথয় আসে,,

মুমু এবার আমার সামনে আসলো,,,
এসে আমার শাটের কলার ধরলো
আমার তো হার্টঅ্যাটাক খাওয়ার মতো অবস্থা ,,,
গলা শুকিয়ে মরুভূমি হয়ে গেছে অলরেডি

“””” ম্যাম আমি কি কোন দোষ করেছি???
কারো ক্ষতি করেছি???
“””” এটা কি প্রেম আলাপ করার জায়গা ??? ( রাগী কন্ঠে)
“””” আমি তো কারো সাথে প্রেমালাপ করছি না ম্যাম,,,
“””” তাই ,,, আমি একটু আগেই যে দেখে আসলাম ,,,
“””” অাপনি অনেক গুলো ফাইল দিছেন ,,, তাই ও আমায় হেল্প করছে,,,
“””” আচ্ছা,,, “” ও”””।
“””” না মানে উনি,,,,
“””” আচ্ছা যান,,, আপনাকে ফাইল দেখতে হবে না
ফাইলগুলো নিয়ে আসুন ,,,
“””” কিন্তু ম্যাম ফাইল গুলো চেক করা শেষ হয়ে গেছে ,,,
“””” এতো তাড়াতাড়ি??? কিভাবে???
“””” নেহা সহ গল্প করতে করতে চেক করছি ,,,
“”” কি???
“””” না মানে,,, ইয়ে ,, মানে,,,, হ্যাঁ,,,

মুমুকে এখন বিষাক্ত সাপের মতো লাগছে
শুধুই ফোঁস ফোঁস করছে,,,
এখানে থাকা নিরাপদ না,,,,
যে কোনো সময় ছোবল খাওয়ার সম্ভবনা আছে ,,,

“””” ম্যাম আমার একটু কাজ আছে ,,, আমি গেলাম,,,

ভাগ সুমন ভাগ,,,
এখানে থাকলে শহীদ হয়ে যাবি,,,

তাড়াতাড়ি করে আমার কেবিনে আসলাম ,,,
কেবিনে এসে ফোনটা হাতে নিয়ে দেখি
তিনবার মিসকাল,,,
কিন্তু নাম্বার টা তো অপরিচিত,,,
আবার ফোন দিছে,,,
রিসিভ করে সালাম দিলাম,,,

“””” কে???
“””” ভাইয়া আমি মায়া,,,
“””” ওহহ মায়া,,, বলো,,,
“””” আমার কোচিং তো শেষ ,,,
“””” আচ্ছা তুমি দাঁড়াও আমি আসছি ,,,

বের হয়ে পিয়নকে বললাম
যদি ম্যাম আমায় খোঁজে তবে বলিও
আমি মায়া ম্যাম কে নিতে গেছি ,,,

এরপর
মায়ার কোচিং এ আসলাম ,,,

“””” মায়া বাসায় যাবা নাকি আমার সাথে অফিসে যাবা,,,
“””” বাসায় একা থাকতে ভালো লাগবে না ,,,
তোমার সাথে অফিসে যাবো,,,
“””” আচ্ছা চলো,,,

মায়াকে নিয়ে অফিসে আসলাম ,,,

একটু পরেই লাঞ্চ করার সময় হলো
মায়াকে নিয়ে অফিসে কেন্টিনে আসলাম,,,
গিয়ে দেখি নেহা বসে আছে
মায়াকে নিয়ে নেহার টেবিলে বসলাম,,

“””” মিস নেহা,,, কখন আসছেন,,,
“”” একটু আগে ,,, উনি কে? ( মায়াকে দেখিয়ে দিয়ে)
“””” আমার ছোট গিন্নি,,, ( মায়া আমার দিকে তাকিয়ে হাসলো) মায়া উনি নেহা,, আমার কলিগ ,,,
‘”””” আপু খেতে আসবে না ,,, ( মায়া)
“””” না,,, উনি তোমার অনিক ভাইয়ের সাথে বাইরে খেতে যায়,,, ( আমি)
“””” আচ্ছা ,,,,

তিনজন মিলে ভালোই আড্ডা জমিয়ে তুলেছি,,,
হঠাৎ পিছনে থেকে কারো কন্ঠ শুনে
তিনজনেই আটকে গেলাম ,,,

“””” মায়া,, তুই কখন আসলি,,,
“””” একটু আগে ,,,
“””” একা একা ,,,
“”” না,,, সুমন ভাইয়া নিয়ে আসছে ,,,,

মুমু আর কিছু বললো না ,,,
পাশেই নেহাকে দেখে
সুন্দর ফর্শা মুখটা
অমাবস্যার রাতের মতো হয়ে গেল,,,

মুমু আর কিছু না বলে চলে গেলো,,,
আজ কি তাহলে মুমু বাইরে খেতে যায় নি ,,,
কিন্তু ক্যান্টিনেও তো কিছু খেলো না,,,

“”” মায়া তুমি নেহার সাথে কথা বলো আমি আসছি ,,,
“””” কই যাবা,,,,
“””” কেবিন থেকে আসছি ,,,
“””” আচ্ছা ,,,

কেন্টিন থেকে বের হয়ে ডিরেক্ট মুমুর কেবিনে আসলাম

“””” আসবো ???
“””” হুম ,,, কিছু বলবেন ???
“””” হুম ,, তবে অফিসিয়ালি কিছু না ,, পার্সোনাল,,,,
“””” বলুন ,,,
“””” কিছু খাইছো,,,,
“””” আপনি কিন্তু আবার,,,,
“””” যেটা বলছি সেটার উত্তর দাও ( একটু রেগে গিয়ে)

আমি একটু রেগে যাওয়ায় মুমু চুপসে গেছে,,,
এখন এমন মনে হচ্ছে যে
কোনো পিচ্চি বাচ্চার মুখ থেকে ফিডারটা সরিয়ে রাখা হয়েছে,,,

“””” না খাইনি,,,
””” এই স্যান্ডউইচ টা খেয়ে নাও,,,
“””” খাবো না আমি ,,,
“””” খেতে বলছি ,, খাও,,,,
“””” খাবো না বলছি তো,,, তুমি গিয়ে তোমার নেহাকে খাওয়াও,,,
“””” মুখ খোলো খাইয়ে দিচ্ছি,,,

মুমু মুখ না খুলে উল্টো আমার হাত সরিয়ে দিলো,,,

“””” খাবে না ,,,
“””” না,,,,
“””” ঠাসসসসসসস,,,,

অনেক বুঝিয়েছি,,,
আর পারবো না ,,, রাগটাও একটু বেরে যাওয়ায়
মুমুর উপর দিয়ে ছোট্ট একটা ভূমিকম্প গেলো,,,
যদিও বা এতে আমার কোনো দোষ নাই ,,,

লক্ষী মেয়ে হয়ে এখন খাচ্ছে
একটু আগে খেলে কি এমন হতো ,,,
ইশশশ গালটা লাল হয়ে গেছে
নিজের ভালো টা না বুঝলে যা হয় আর কি

আম্মু সব সময় বলে
মাইরের উপর কোনো ঔষধ নেই ,,,
এইজন্য বোধ হয় বলে,,,,

তবে আজ একটা কথা বুঝলাম
যে মেয়েটা যত বেশি রাগী
সে মেয়েটার মন তত নরম হয়
আর সে মেয়ে টা তত বেশি ছেলেমানুষী করে ,,,

সেদিন অফিস শেষ করে বাসায় আসলাম।।।
মায়া ওর আপুর সাথে আসছে,,,
আমিও নেহাকে নিয়ে ওর বাসায় নামিয়ে দিয়ে আসছি ,,,
কিন্তু বাসায় কেউ নেই ,,,,

ভিতরে গিয়ে ফ্রেশ হলাম,,,
হঠাৎ বাইরে গাড়ির হর্ণ এর শব্দ ,,,
মনে হয় মুমুরা আসলো,,,

বাইরে বের হয়ে দেখি নতুন গাড়ি,,,,

“””” ভাইয়া,,, আপু নতুন গাড়ি নিলো,,, অনেক সুন্দর না???
“”””” হুম ,,, অনেক সুন্দর ,,,,

যদিও বা মুখ হাসি নিয়ে
কথা টা বললাম,,, কিন্তু মনটা তাৎক্ষণিক
খারাপ হয়ে গেল ,,,

খুব ইচ্ছে ছিলো,,,,
মুমুকে বাইকের পিছনে বসিয়ে অফিসে যাবো,,,
একসাথে আসবো,,,
ও আমার বাইকের পিছনে থাকবে
আমায় জড়িয়ে ধরে ,,,
কতই না রোমান্টিক একটা মুহূর্ত,,,,,
কিন্তু না,,,
সব স্বপ্ন স্বপ্নই রয়ে গেলো ,,,,

আমি ভিতরে এসে রান্না ঘরে যাবো রান্না করতে
ঠিক তখনি মায়া এসে বললো,,,

“””” ভাইয়া আপু রান্না করতে নিষেধ করলো,,,
“”””” কেন???
“””” আজ নাকি ওর কোন যেন ফ্রেন্ডের জন্ম দিন ,,,, সেই পার্টিতে যাবো,,,
“””” ওহহহ,,, ঠিক আছে ,,, তাহলে আমি একার জন্য রান্না করবো,,,,
“”””” না,,, তুমিও যাবে,,,,
“”””” আমি গিয়ে কি করবো বলো ,,, ওর বন্ধুরা থাকবে ,,,,
“”””” তারমানে তুমি যাবে না ,,,
“”””” না,,,
“”””” ওকে তুমি যদি না যাও তবে আমিও যাবো না ,,,,
“”””” তোমার আপু রাগ করবে ,,,,
“””” করলে করুক,,, তুমি না গেলে আমি ও যাবো না ,,,, আমি গিয়ে আপুকে বলে দিচ্ছি

“””” এই মায়া,,,
“””” আর শোনো এখন থেকে আমায় মায়া ডাকবে না,,,
“”””” আচ্ছা ,, আপু বলে ডাকবো ,,,
“””‘ না,,,,
“”””” তবে ???
“”””” ছোট গিন্নি বলবা,,,,,
“”””” আচ্ছা ,,,

আমরা দুজন গল্প করছি
এমন সময় মুমু আসলো,,,,

“”””” মায়া তোকে কি বলতে বলছি ,,, বলছিস,,,,
“”””” হুম কিন্তু ভাইয়া নাকি যাবে না ,,,,
“””” কেন???
“”””” আমি গিয়ে কি করবো ???
“””” ভাইয়া না গেলে আমিও যাবো না ,,,,
“””””” সবাই কে যেতে হবে এটাই ফাইনাল ,,,,,

মায়া মুমুর মুখের দিকে তাকিয়ে আছে ,,,

“”””” আচ্ছা আপু তোমার মুখে এই দাগটা কিসের ,,, এতক্ষণ তো খেয়াল করি নি ,,,,,

মুমু আমার দিকে তাকালো
আমিও অবাক হয়ে তাকালাম,,,
সেই কখন মারছি,,,
এখনো দাগ আছে ,,,

“””””” ওটা কিছু না ,,,, হয়তো কিছু লাগছে ,,,,
“”””” এটা কিছু লাগার দাগ না আপু,,,, তখন কান্না করছো কেন সেটাও বলো নি,,,,
“””” বলছি না কিছু হয় নি ,,, বার বার এক কথা শুনতে ভালো লাগে না ,,,,
“”””” মায়া তুমি রুমে যাও,,,, তোমার আপুর সাথে আমার কিছু কথা আছে ,,,,

মায়া রুমে চলে আসলো,,,,
আমি মুমু সামনে আসলাম ,,,
অনেক টা কাছে চলে আসছি ,,,
এতটাই কাছে যে ওর নিশ্বাসের শব্দ আমার কানে আসছে,,,

লাইটের আলোয় স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে গালের দাগটা,,,
রাগের মাথায় থাপ্পড় টা একটু জোরেই হয়ে গেছে মনে হয়,,,

খুব ইচ্ছে হচ্ছে ওর গালটা একটু ছুয়ে দিতে
হাতটা যেই ওর গালের কাছে নিয়ে আসলাম ,,,
অমনি ও আমার হাতটা সরিয়ে দিলো,,,,

“”””” তুমি আমায় স্পর্শ করবে না ,,,, আর তাড়াতাড়ি রেডি হয়ে নাও ,,,

মুমু রুমে চলে গেল ,,,,
বুঝতেই পারছি না ,,,
এ মেয়ে কি আমায় ভালোবাসে নাকি বাসে না,,,
আচরণ দেখে মাঝে মাঝে মনে হয় বাসে
আবার নিজেই বলে ঘৃণা করে ,,,
কোনটা বিশ্বাস করবে,,,,
এখন আবার চোখ মুছতে মুছতে রুমে চলে গেলো
হয়তো কান্না করছে ,,,,

আল্লাহ মেয়েদের বানিয়েছো ভালো কথা
কিন্তু এদের বোঝার জন্য একটু তো ক্ষমতা দিতা আমাদের ,,,,
না পারি বুঝতে,, ভালোবাসে কি না
আর না পারি বোঝাতে কতটা ভালোবাসি ,,,,,
..
..
.
To be continue

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *