বিদেশি ম্যাম । রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প । শেষ পার্ট

বিদেশি ম্যাম

এই অন্ধকারেও নিলার চোখের বিন্দু বিন্দু পানি আমি স্পস্ট দেখতে পাচ্ছি,,
.
নিলাঃকিছু বলছেন না যে,,খুব কি অপরাধ করে ফেলেছি,,,
আমিঃদেখেন,, ভাইয়া ভাবির বিশ্বাষ নষ্ট করতে পারবো না,, আর তাছারা ভাবি এমনেই ওই দিনের পর থেকে বেসি একটা ভালো ভাবে না আমাকে হয়তো,,
নিলাঃওসব আমি মেনেজ করবো,, আপনি শুধু আমাকে কাছে টেনে নেন,, বাকি সব আমি দেখবো,,,
আমিঃদেখুন এটা হবার নয়,ভালো কাউকে খুজে নিয়েন,,,
এই বলে যেই চোলে আসতে যাবো, তখন নিলা আমার হাত দরে দেয়ালের সাথে ঠেসে দরলো,,
রাগী স্বরে বললো,
নিলাঃএটা হবার,, একশ বার হবে,,আমার ভালো কাউকে প্রোয়োজন নেই তোকেই প্রোয়োজন,, কি ভেবেছিস,,শান্ত ভাবে থাকি বলে এতটাও শান্ত না আমি,,,তোকে চাই, তোকে লাগবে তোকে প্রোয়োজন।
আমিঃদেখুন আপনি কিন্তু বে….
উম উমমমমম
.
নিলা আর কিছু বলতে দিলো না আমায়,,
ওর ঠোট দিয়ে আমার ঠোটের মাঝে চেপে দরলো,,
কিছুক্ষন পর ছেরে দিলো,,
আমি হাপাতে লাগলাম,,
নিলাঃচুপচাপ খেয়ে রুমে গিয়ে ঘুমাবেন,,, ইরা,মিম এদের কারো সাথে যেনো কথা বলতে না দেখি,,আর যদি দেখি,,,তাহলে সবার সামনে কি করবো ভালোভাবেই বুঝতে পারছেন,,,যান,
.
আমি নিচে চোলে গেলাম,,
.
কি মেয়েরে বাবা,,,মুহুর্তেই রং বদলাতে পারে,,,
ওর অগ্নী মুর্তি দেখে আমি আর কিছু বলতে পারলাম না
ভয়ে,,
এই ভাবে কিচ করে কেউ,,,ঠোট যেনো আরেকটু হলে ছিরে যেতো,,,
.
রাতে খেয়ে ঘুমিয়ে গেলাম,
.
পরের দিন,,সকালে চোখ খুলতেই দেখি একজোরা চোখ আমার মুখের কাছে,,
আমার দিকে তাকিয়ে আছে,,
আমি লাফ মেরে উঠে বসলাম,,
.
ভালো করে তাকিয়ে দেখি নিলা,,
নিলাঃ কি হোয়েছে, এভাভে লাফ মেরে উঠলেন কেনো,,
আমিঃতুমি, না মানে আপনি এখানে কেনো,,,
নিলাঃতুমি করে বলেন,,
আমিঃআমি সবাইকে তুমি করে বলি না,,,
নিলাঃতুমি করে বলবেন না,,
আমিঃ না,,
নিলাঃ তাহলে আমি দরজা আটকিয়ে চিৎকার করবো,, তারপর বুঝবেন, কি হবে,
আমিঃদেখুন বেসি বারাবারি করবেন না,,
নিলাঃআবার আপনি করে বলছেন,,,আমি দরজা আটকাচ্ছি,,,
নিলা দরজা আটকাতে যাচ্ছে,
আমি ভয়ে ওর হাত দরে টান দিলাম,,
তারপর যা হবার তাই হলো,,
আমার উপর এসে পরলো,,
.
নিলা আমার বুকের উপর হাত ভর দিয়ে আমার মুখের কাছে মুখ এনে বললো,,, কি টান দিলেন কেনো, তুমি করে বলবেন তো,,,
আমিঃহুম বলবো,,এবার আমার উপর থেকে সরো,,
নিলা ঃএত তারাতারি সরবো নাকি,,
আমিঃকেউ দেখে ফেলবে,,সরো,,
নিলাঃএক দমই না,,
এই বলে নিলা আমার গালে আলতো করে হাত দিলো,,
আমিঃএই কি করছো,, সরো বলছি,, না হয় ফেলে দেবো,,
নিলাঃপারলে ফেলে দেও,,
.
উফ কি জামেলায় পরলাম,,,

হঠাৎ সে সময় মিম রুমে ঢুকলো,,
রুমে আমাদের দেখে মুখে হাত দিয়ে চেয়ে থাকলো,,
আমি তরিগরি করে ওকে জোর করে পাসে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিয়ে রুম থেকে বের হোয়ে গেলাম,,,,
.
লাজ লজ্জা সব গেছে মেয়েটার,,
.
নিলা মিম কে বললো,,,তুই আর আসার সময় পেলি না,,,
মিমঃবেস তো রোমান্স করছিস দেখছি,,
নিলাঃরোমান্স আর হলো কোথায়,,তুই সবকিছুতে পানি ঢেলে দিলি,
মিমঃতা কবে থেকে সবুজ ভাইয়ার সাথে রিলেশন করলি,,
নিলাঃএখানে আসার পর থেকে,,
মিমঃধুর আমি আরো চেয়েছিলাম,সবুজ ভাইয়ার সাথে আমি মনের লেনদেন করবো,, আর তুই
নিলাঃখবরদার,,যা বলেছিস বলেছিস,, এর পর যেনো আর না বলিস,,ওনার দারে কাছেও যেনো তোকে না দেখি,,
মিমঃবাব্বা,,ওনি একে বারে প্রেমে লাইলি হোয়ে গেছে,,,
,
নিলাঃমাইর দেবো একটা,,চল,,
.
আমি ফ্রেস হোয়ে নাস্তা খেতে টেবিলে বসলাম,,,
আমিঃভাবি নাস্তা দিয়ে যাও,,
ভাবিঃবসে থাক দিচ্ছি,,
,
একটু পর ভাবি নাস্তা নিয়ে আসলো,,
নিলা সহ সবাই আসলো নাস্তা
খেতে,,
নিলা বরাবরের মতো আমার সমনে বসলো,,
বসে আছে ঠিক আছে,, কিন্তু একটু পরই ওর পা দিয়ে আমার পায়ে স্লাইড করছে,,,
.
ওফ খাওয়ার সময়ও ফাজলামো,,
ভাবিঃকিরে সবুজ বিবরবির করে কি বলিস
আমিঃকিছু না,,
.
নিলা সুন্দর তার দু পা দিয়ে আমার একপা পেচিয়ে দরে নাস্তা খাচ্ছে,,, সবার সামনে কিছু বলতেও পারছি না,
.
আপু ফোন করেছিলো আপুর কাছে যেতে,,
আমি বিকালে আসবো বলেছি,,,
.
দুপুরে খাওয়ার সময় নিলা একই ভাবে পা দিয়ে দুষ্টমি করছে,,
ভাবলাম,,ভাবি কে যাওয়ার কথাটা
বলি,,
আমিঃভাবি, আমি বিকালে আপুর বাসায় যাচ্ছি,,, আপু যেতে বলেছে,,
,
এ কথা সুনে নিলার সব দুষ্টমি বন্ধ হোয়ে গেছে,,পা দিয়ে গুত দেওয়া,, স্লাইড করা সব বন্ধ হোয়ে গেলো,,
হাসি মুখটা মলিন হোয়ে গেলো,,
খাওয়া বন্ধ করে আমার দিকে ঘোর লাগা চোখে তাকিয়ে আছে,,
ভাবিঃকদিন থাকবি,,
আমিঃদু সপ্তাহর মতো,,
ভাবিঃও,,তোর ভাইকে বলে যাস,,
আমিঃওকে,,
.
আমি খেয়ে রুমে এসে একটু রেষ্ট নিচ্ছি,,
চোখটা একটু বন্ধ করেছি,,
হঠাৎ দরজা আটকানোর শব্দে চোখ খুললাম,,
তাকিয়ে দেখি নিলা দরজা আটকিয়েছে,,
আমিঃএই কি করছো,, দরজা খুলে দেও,,সবাই কি ভাববে,,
নিলা ঘোর লাগা চোখে আমার দিকে তাকিয়ে এক পা এক
পা করে আগাতে লাগলো,,
আমিঃদরজারটা খুলে চোলে যাও,,কেউ দেখলে খারাফ ভাববে,,
.
নিলা আমার কাছে এসে ধাক্কা মেরে খাটে ফেলে দিয়ে আমার উপর ওর গা এলিয়ে দিলো,,
.
আমার মুখের কাছে মুখ এনে নিলা বললো,,আমার কারনে চোলে যাচ্ছেন,, তাই না,,
আমিঃতোমার কারনে যাবো কেনো,,
নিলা ঃআমি আপনাদের বাসায় থেকে খুব সমস্যা করছি তাইনা,,
.
নিলা কাদছে,, ওর চোখের পানি আমার মুখে ফোটা ফোটা আকারে পরছে,,
[ads2]
নিলাঃচোলে যাবো আপনাদের বাসা থেকে,,
এই পৃথিবী ছেরেই চোলে যাবো,,
আমিঃপাগলটাগল হলে নাকি, কি বলছো,,
.
নিলা হঠাৎই আমার বুকের ভিতর ওর মুখটা ঘুজে দিলো,,
তারপর কাদতে কাদতে বললো,,সত্যি মরে যাবো,,আপনাকে ছারা,,বাচবো না,,খুব ভালোবেসে ফেলেছি আপনাকে,,,,,জানি না কেনো এতো ভালোবেসেছি আপনাকে,, শুধু এটা জানি, আপনাকে ছারা থাকতে পারবো না,,
নিলা আমার বুকের ভিতর ঢুকরে ঢুকরে কাদছে,,
.
মুহুর্তেই ভাবির বলা কথা ভুলে গেলাম,,
তোমাদের সম্মান দিয়ে কি হবে যদি আমি ই না বাচি,আমার প্রান না বাচে
.
আমি নিলার মাথায় হাতভুলাতে লাগলাম,,
.
নিলা কান্না বন্ধ করে মাথা উঠিয়ে আমার মুখের দিকে তাকালো,,
বুঝার চেষ্টা করছে,,
আমি ওর মাথায় হাত ভুলিয়েছি কি না,,
.
নিলা জিগাসু দিষ্টিতে আমার চোখের দিকে তাকিয়ে আছে,,
আমি ওর মাথা টা টেনে কপালে একটা চুমু দিলাম,,
নিলা এবার শক্ত করে জড়িয়ে দরে বুকের ভিতর মুখ ঘুজে দিয়ে কাদতে লাগলো,,
কেনো জানি আমার চোখের কোন বেয়ে পানি পরতে লাগলো,,,,
কিছুক্ষন পর হঠাই দরজাটা কে যেনো নক করতে লাগলো,,,

.কিছুক্ষন পর হঠাৎই দরজাটা কে যেনো নক করতে লাগলো,,
আমি ভয় পেয়ে গেলাম,, ভাবি দেখলে কি হবে,,
.
নিলা আমার ভয় পাওয়া দেখে মুখের দিকে তাকিয়ে আমার দুগালে আলতো করে দু হাত দিয়ে আদুরের গলায় বললো ,, এত ভয় পাচ্ছেন কেনো, আমি আছি না,, আমি থাকতে কেউ আপনাকে কিছু বলতে পারবে না,, সুয়ে থাকেন,, আমি দেখছি কে আসছে,,
.
নিলা দরজা খোলার জন্য যাচ্ছে,, ভয়ে আমার হার্ডবিট বেরে গেছে,,
.
নিলা দরজা খুলতেই মিমের গলার আওয়াজ পেলাম,,, তাহলে কি মিম,,
উপ বড় বাচা বেচে গেলাম,,,
.
মিমঃকি আপনাদের রোমান্স শেষ হলো,,
নিলাঃমারবো একটা,,বের হ রুম থেকে,,
মিম ঃকি আবার রোমান্স করবি নাকি,,
নিলাঃজাবি তুই,,
মিমঃআরে বাবা যাচ্ছি,,,
মিম রুম থেকে বের হোতে যেয়ে আবার ফিরে এলো,,
.
মিমঃও যেকারোনে আসা,, আপনিতো বিকালে চোলেই জাবেন,,আমি ঘুরবো কার সাথে,,, আমাদের মহারানির তো সময় হবে না আমাকে নিয়ে ঘুরার,,আপনারাতো আপনাদের রোমান্স করছে,,এখন আমার রোমান্স করার জন্য একজন ঠিক করে দিয়ে যান,
আমিঃতোমার যোগ্য কাউকেইতো দেখছি না,,
মিমঃআবাদত আপনার ওই বজ্জাত বন্ধুটাকে বলে যান,,
নিলাঃএত ঘুরিয়ে পেচিয়ে না বলে সোজাই তো বলতে পারতি,,,
যা রুম থেকে,,
আমিঃআচ্ছা আমি বলে দেবো,,,,
মিম রুম থেকে বের হোয়ে গেলো,,
.
নিলা আবার আমার কাছে আসলো,,
আমার বুকের কাছে ভর দিয়ে মুখের কাছে মুখ এনে বললো,,
আপনি সত্যি কি বড় আপুর কাছে চোলে যাবেন,,
আমিঃহুম,,
নিলাঃ নাগেলে হয় না,,,
আমিঃআপু অসুস্থ, যেতেই হবে,,আর এত টেনশন করছো কেনো,,দুসপ্তাহর জন্যইতো যাচ্ছি,, আবার চোলে আসবো,,
.
নিলা আমাকে জড়িয়ে দরে বুকের ভিতর মুখ গুজে দিয়ে বললো,,
নিলাঃআমি আপনাকে ছারা থাকতে পারবো না,ভালো লাগেনা আপনাকে ছারা,,
আমিঃপাগলি একটা,,,চোলে আসবো তারাতারি,,
নিলাঃহু
.
হঠাৎ ই ভাবি, সবুজ সবুজ বলতে বলতে রুমের ভিতর ঢুকে গেলো,
এসেই আমাদের দুজন কে একসাথে
দেখে,,হা হোয়ে গেলো,,
.
আমি তো ভয়ে শেষ,,
.
ভাবিঃবা বা,,ভালোই এগিয়ে ছো দুজন,,
.
নিলা কিছুটা আদুরি গলায় বললো,,আপু….
ভাবিঃথাক থাক,, এতো লজ্জা পেতে হবে না,,
দেবর তো দেখি আমার বোন কে পাগল করে ছারলো,,
বিয়ে তো দেখি খুব তারাতারি দিতে হবে,,
.
ভাবিঃআচ্ছা থাকো তোমরা,,
.
ভাবি চোলে গেলো,,
.
নিলার মুখের কোনে হাসি লেগে আছে,, ভাবির বলা কথা শুনে,
.
নিলাঃআপনি রেষ্ট নেন,,আমি আপনার জামা কাপর ঘুছিয়ে দিচ্ছি,,,
এই বলে নিলা আমার কপালে একটা চুমু দিয়ে জামা কাপর গোছাতে চোলে গেলো,,,,
.
চোখ বন্ধ করে একটু ঘুমানোর চেষ্টা করলাম,,,,
.
বিকালে চোলে যাচ্ছি,,
,,
নিলা মুখ গোমরা করে দারিয়ে আছে,,
নিলার চোখের কোনে পানি দেখতে পেলাম,, নিলাকে বললাম,,
আমিঃএদিকে আসো,,
.
নিলা গুরি গুরি পায়ে আমার সামনে এসে মাথা নিচু করে দারালো,,
ওর মুখ দরে উপরে উঠালাম,,
মিম দেখি একটু দুরে দারিয়ে আমাদের দিকে তাকিয়ে আছে,,
আমিঃসালিকা, চোখ বন্ধ করো,,
মিমঃহুম করছি,,
.
আমি নিলার কপালে আলতো করে একটা চুমু দিলাম,,
নিলা সাথে সাথে আমাকে জড়িয়ে দরে কেদে দিলো,
আমিঃআরে পাগলি,, এমন করছো যেনো দুবছরে জন্য যাচ্ছি,,
নিলাঃআমার কাছে দুসপ্তাহ দু বছরের মতো,,,
আমিঃআচ্ছা আমি তারাতারি চোলে আসার চেষ্টা করবো,,
ওর চোখের পানি মুছে দিয়ে কাপালে আরেকটা চুমু দিয়ে মিমের কাছে গেলাম,,
.
আমিঃহোয়েছে আর চোখ বন্ধ করে থাকতে হবে না,, আমি সাগর কে বলে দিয়েছি,, ও এসে তোমাকে ঘুরতে নিয়ে যাবে,,,
.
আমি বাসে চরে আপুর বাসায় চোলে আসলাম,,
.
অন্যদিকে সাগর মিম কে পিক করতে এসেছে বাসায়,,
.
মিম বাসার সামনে আসলো,,
.
সাগরঃতা মিস আপনি কি বাইকে যাবেন নাকি রিক্সায়,,
.
মিমঃরিক্সায় যাবো,
সিগরঃচলেন তাহলে,,,
.
সাগর আর মিম রিক্সায় বসে আছে,,
.
সাগরঃএই আপনার হাতে কি,,
মিমঃকোথায়,,
সাগরঃওই যে আপার হাতে, দেখি দেখি,
সাগর যে মিমের হাত দরতে এইসব বলেছে,,মিম তা বুঝতে পেরে হাত ছারিয়ে সাগরের কাদে দুটো থাপ্পর মেরে বললো,,বজ্জাত একটা হাত দরার ধান্দা,,,
সাগরঃহাহাহা,,সুন্দরি মেয়েদের হাত না দরে কি পারি,,
মিমঃমারবো একটা, ফাজিল কোথাকার,,
সাগর চুপ করে থাকলো,,
মিমঃকয়টা মেয়েকে পটিয়েছো,,
সাগরঃএকটাও না,,তুমিই প্রথম,,
মিমঃকি,, আমাকে পটাচ্ছো,,
সাগরঃসরি সরি, ভুলে মুখ থেকে বেরিয়ে গিয়েছে,,
মিমঃহুম,,
সাগর কিছু টা মন খারাফ করলো,,চেয়েছিলো ওকে পটাবে, কিন্তু যেই মেয়ে পটানোর কথা শুনেই রেগে গেলো,,
.
মিম সাগরের চুপ থাকা দেখে সাগরের সামনে হাত বারিয়ে দিলো,,
সাগরঃকি
মিমঃদরো
সাগরঃশুধু শুধু হাত কেনো দরবো,,
মিমঃআর বাহানা করা লাগবে না,,তুমি যে আমার হাত দরতে চাও সেটা আমি বুঝি,,
সাগর মিমের হাত দরলো,,
মিমঃহাতে কি শক্তি নেই শক্ত করে দরো,,
সাগরঃহুম,,
[ads1]
মিমঃবিয়ের পর আমরা কিন্তু বিদেশে চোলে যাবো,, আমার বাসায়,
.
মিমের কথা শুনে সাগর যেনো শক খেলো,,
সাগরঃকি ইই.
মিমঃযেটা শুনেছো সেটাই, তুমি যে আমার প্রথম দেখায়ই প্রেমে পরেছো সেটা আমি ভালোভাবে বুঝেছি,,
সাগরঃতুমি কি দেখে আমার প্রেমে পরলে,,
মিমঃতোমার প্লোটিং দেখে,,
সাগর ঃহাহাহাহা,,
মিমঃতবে এই প্লোটিং যদি আমার সাথে ছারা অন্যকারো সাথে করেছো,,তাহলে বুঝবে এই মিম কি জিনিস,,
সাগরঃতাহলে একটা চুমু দেও,,
মিমঃকি,, প্রেম শুরু হোতে না হোতেই চুমু,,
সাগরঃ থাক লাগবে না,,
মিমঃহোয়েছে আর রাগ করা লাগবে না এদিকে আসো,,
মিম সাগরে গালে একটা চুমু দিলো,,
সাগল তার ঠোট দেখিয়ে বললো,,ওই খানে না এই খানে,,
মিমঃবদ একটা,, লজ্জা নেই,,চোখ বন্ধ করো,,,দিচ্ছি,,।
.
.
আজ দুসপ্তাহর কাছাকাছি হোতে
চললো আমি আপুর বাসায়,।
,,
.
ভাবি হঠাৎ আমার কাছে ফোন দিলো,,
আমিঃহ্যা ভাবি বলো,,কেমন আছো
ভাবিঃআমি ভালোই আছি,, তোমার নিলা ভালোনেই,,
আমিঃকেনো কি হোয়েছে,,
ভাবিঃআজ দুসপ্তাহ হোতে চললো,,মেয়েটার কোনো খোজ নিয়েছো,,তোমার টেনশনে মেয়েটা খাওয়া দাওয়া করছে না,,
আমিঃনিলাকে বইলো আজ বাসায় আসছি,,
ভাবিঃবাসায় যাওয়ার দরকার নেই,, আমাদের বাসায় চোলে আসো,,সাথে আপু দুলাভাইকে নিয়ে আসো,,,,
আমিঃআচ্ছা,,তোমরা তোমাদের বাসায় গেলে কবে,,
ভাবিঃচারদিন হলো,,
আমিঃও
ভাবিঃতারাতারি চোলে এসো,, তোমার পেয়সি তোমার জন্য ছটপট করছে,,
আমিঃআর লজ্জা দিও নাতো, আসছি,,,
.
আপু কে নিয়ে বিকালেই নিলাদের বাসায় গেলাম,,
.
বাসার ভিতর ঢুকতেই নিলা কোথা থেকে যেনো দৌরে এসে আমার বুকে জাপিয়ে পরলো,,
আমি ও আমার প্রানকে পরম আদরে জড়িয়ে নিলাম,,ওকে পেয়ে যেনো সব ভুলে গেছি,,
.
হঠাৎ ই চারো দিকে চোখ যেতেই দেখি নিলার বাবা,,আমার আব্বু, ভাইয়,,আরো কিছু রিলেটিব আমাদের চার পাসে ছোফায় বোসে আছে,,,
আমরা সবার মাঝখানে দুজন দুজনকে জড়িয়ে দরে দারিয়ে আছি,,
সবাই মুচকি মুচকি হাসছে,,আমি নিলাকে ছারানোর চেষ্টা করছি, কিন্তু এতজোরেই জড়িয়ে দরেছে যে ছারাতে পারছি না,,,
আমি নিলাকে আছতে আছতে বললাম,,
আমিঃএই সবাই দেখছে,ছারো,,
নিলা বুক থেকে মাথা উঠিয়ে যেই দেখলো সবাই তাকিয়ে মুচকি মুচকি হাসছে
তখন নিলা লজ্জা পেয়ে ভিতরে দৌরে পালালো,,
.
আমি মাথা নিচু করে দারিয়ে থাকলাম,
কেউ কিছুই বললো আমায়,
নিলার বাবা বললো,,
এই নওরিন(ভাবির নাম)সবুজ বাবাজিকে ভিতরে নিয়ে যা,,
.
ভাবি এসে আমাকে ভিতরে নিলার রুমে নিয়ে গেলো,,
[ads1]
ভাবিঃদেবরজি আজ থেকে এটাই তোমার রুম,,,
আমিঃমানি,বুঝলাম না,
ভাবিঃপরে বুঝবে,,
.
ভাবি রুম থেকে চোলে গেলো,,
.
বাহ নিলার রুমটা তো বেস সাজানো গোছানো,,,
.
একটু রেষ্ট নেওয়ার জন্য নিলার খাটে সুলাম,,
চোখ বন্ধ করে আছি,,
হঠাৎ কারো আলতো ছোয়া অনুভব করলাম,
চোখ খুলে দেখি নিলা,,
নিলা আমার বুকে সুয়ে পরলো,,
আমিঃআমার পাগলিটার কি হোয়েছে,,ঠিক মতো খাওনি,,চেহারা এমন শুকালো কেনো,,
নিলাঃআপনি দুরে ছিলেন তাই তো কিছু খেতে ভালোলাগেনি,,
নিলা আদুরের গলায় অভিমান করে বললো,,আপনি দুসপ্তাহ কিভাবে থাকতে পারলেন, জানেন আমার কত কষ্ট হোয়েছে,,।
আমিঃপাগলি এই যে চোলে আসছি না,,আর কষ্ট পেতে হবে না,,
নিলাঃহু,,
আমিঃআচ্ছা সবাইকে দেখলাম এখানে,, কোনো আয়োজন আছে নাকি,,
নিলা মুচকি একটা হাসি দিয়ে বললো,,,
নিলাঃ বলবো না,,
আমিঃবলোনা,,
নিলাঃবলবো,,আগে দুটো পাপ্পি দিতে হবে,
আমিঃআচ্চা কাছে আসো দিচ্ছি,,
উমা উমা,,,—এবার বলো,,
নিলাঃআপনার আর আমার বিয়ে,,
আমিঃকিইইই,
খুশিতে নিলাকে জড়িয়ে দরলাম,,
.
সন্ধায় ভাবি আমাকে পান্জাবি দিয়ে গেলো পড়ার জন্য,,
রোমান ইরা, মিম সাগর আমাদের দেখতে আসলো রুমে,,
নিলাকে ইরা আর মিম সাজাচ্ছে,
আমি নিলাকে দেখার জন্য ওর রুমে গেলাম,,
ইরা আর মিম পথ আটকি য়ে দারালো আমার,
মিমঃনা ভাইয়া,,বিয়ের আগে বৌউ দেখতে দেবো না,,
কি আর করার, সাগর আর রোমানকে আসতে বললাম,,
ওরা এসে ওদের সরিয়ে দিলো,,
আমি নিলার কাছে গেলাম,,
নিলাকে বধু বেসে কি সুন্দর লাগছে,,
আমিঃকি সুন্দর তুমি,,
নিলাঃআপনি কি কম সুন্দর নাকি,, জানেন ওরা আমায় আপনার কাছে যেতে দেয়নি,,
আমিঃআমি বুঝতে পেরেইতো তোমার কাছে চোলে এসেছি,,
নিলাঃহুম,,
নিলাঃবিয়ে কখন হবে,,
আমিঃএকটু পর,,
নিলাঃআমার আর তর সইছে না,,
আমিঃপাগলি একটা,,
.
কিছুক্ষন পর বাসায় কাজি এনে আমিদের বিয়ে পড়িয়ে গেলো,,
.
অন্যদিকে সাগর-মিম,রোমান-ইরা, নিলার রুমে আমাদের বাসর ঘর সাজিয়েছে,,,
.
সবার সাথে কথা বলে বাসর ঘরে যেই ঢুকতে যাবো,, তখন ইরা মিম সাগর রোমান পথ আটকিয়ে দরলো,,
সাগরঃমামা ভিতরে তো এত তারাতারি ঢুকতে দেবো না,
আমিঃকেনো?
রোমানঃছারতে পারি এক শর্তে,,আমাদের একটা কথা দিতে হবে,,
আমিঃকি শর্ত তারাতারি বল,,ভিতরে আমার জান টা আমার জন্য অপেক্ষা করছে,,
রোমানঃআমাদেরকে এক করতে হবে তোমায়,
আমিঃআচ্ছা ইরার টা আমি দেখবো,,মিমের টা নিলা দেখবে,,এখন সর,,
[ads1]
আমি ভিতরে ঢুকে দরজা আটকিয়ে দিলাম,,
নিলা এসে আমার পা ছুয়ে সালাম করলো,
.
খাটে এসে বসলাম দুজন,
হঠাৎ ই
নিলা খাট থেকে বালিশ একটা ছুরে ফেলে দিলো,,
আমিঃআহা কি করছো,,বালিশ ফেলছো কেনো,, তুমি সুবে কোথায়,,।
নিলাঃআপনার বুক আছে কি করতে, আজ থেকে এটাই আমার বালিশ,,,।
(নিলা আমার বুকে সুয়ে বললো)
আমিঃপাগলি একটা,,
নিলাঃহুম আপনার পাগলি,,সারা জীবন আপনার পাগলি হোয়েই থাকতে চাই।
আমিঃআমার পাগলি,,
নিলাঃহোয়েছে,এবার চোখটা বন্ধ করেন তো,,
আমিঃকেনো,,?
নিলাঃবন্ধ করেন না,,
আমিঃআচ্ছা করছি,,এই করলাম,,
হঠাৎ ই নিলা আমার মাথা দরে ওর ঠোট দুটো আমার ঠোটের মাঝে ডুবিয়ে দিলো,,
.
ওর ঠোটের ছোয়া পেয়ে আমার সারা শরিল সিহরিত হোয়ে গেলো,,
নিলা ওর ঠোট দিয়ে আমার ঠোটে চুমুক দিয়ে দরেছে,,
আমি ও তার ডাকে সারা দিলাম ,
ডুবে গেলাম ভালোবাসার অন্তহীন এক মুহুর্তে।আগামি পথ চলার এক নতুন অঙ্গিকার নিয়ে।
.
ভালো থাকবেন সবাই,,দেখা হবে আবার নতুন কোনো গল্পে,

বিদেশি ম্যাম। রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প।লাভ স্টোরি। পার্ট-৩

বিদেশি ম্যাম।রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প। লাভ স্টোরি পার্ট-২

বিদেশি ম্যাম । রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প -পার্ট ১

আমাদের ফেসবুক গ্রুপ

 https://web.facebook.com/groups/2232839716759626

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *