রাগি গার্লফ্রেন্ড যখন বউ-Part-5

রাগি গার্লফ্রেন্ড যখন বউ♥
লেখাঃমোঃরিফাত আলি♥
#পর্বঃ05

তাকিয়ে দেখি ইতি কল দিয়েছে।
রিসিভ করতে যাব তখনি
সিমিঃকে ফোন করেছে?
.
আমিঃযে খুশি করুক তাতে তোমার কি?
.
সিমি আর কিছু বলতে না দিয়ে বেলকনিতে গিয়ে ইতির সাথে টুকটাক কথা বললাম।
.
রুমে আসতেই
সিমিঃদেখি তোমার ফোন দাও।
.
আমিঃকেন?
.
সিমিঃদিতে বলেছি দাও।

.
ছো মেরে ফোনটা নিয়ে নিল।
সিমিঃও তাহলে তলে তলে এতদুর এগিয়েছ?
আমিঃমানে?
.
সিমিঃওই মেয়ে তোমায় এতরাতে কল দিল কেন?
.
আমিঃকেন দিতেই পারে।
সিমিঃকেন দিবে?
আমিঃযে শহরে জড়িয়ে ধরা কমন ব্যাপার সে শহরে মোবাইলে কল দেওয়া কি সাধারন ব্যাপার না?
.
সিমিঃবারবার এক কথা বলো কেন?
আমিঃতুমি কেন রেগে যাও কোন মেয়ের সাথে কথা বললে?
সিমিঃউফ। তুমি একটা পেইন। ডিসগাস্টিং।
.
আমিঃহ্যাঁ আমি ত ডিসগাস্টিং। উজ্জল তো মধু।
.
সিমিঃবারবার ঘুরে ফিরে এককথা বলো কেন?
.
আমিঃচুপ করবে তুমি। আমি ঘুমাবো। বিরক্ত লাগছে।
.
সিমিঃআমাকে ত বিরক্ত লাগবেই।ইতত্যা আছেনা তোমার মধু।
.
আমি আর কথা বলছিনা।আমি কথা বললেই ঝগড়া বাড়বে।তাই চুপ করে থাকাটাই শ্রেয়।
.
সিমি অনেকক্ষন ধরে প্যানপ্যান করে শুয়ে পড়লো।
.
অনেকক্ষন পরোও আমার ঘুম আসছে না। মাথা প্রচন্ড ব্যাথা করছে।
শুধু এপাশ ওপাশ করছি।
.
সিমিঃকি হলো এত নড়ো কেন? ঘুমাতে পারছিনা তোমার জন্য।স্থির হয়ে থাকো।
.
আমিঃহুম।
.
ঝান্ডু বম নিয়ে কপালে লাগিয়ে দিলাম। ব্যাথাটা কমতে পারে।
.
সিমিঃমাথা ব্যাথা করছে তোমার?
আমিঃ—–।
সিমিঃকি হয়েছে বলো?
আমিঃমাইগ্রেন পেনটা হচ্ছে।
সিমিঃআগে বলবানা? দেখি মলমটা দাও।
আমিঃকেন?
সিমিঃমাথা টিপে দি।
আমিঃদরকার নেই।
সিমিঃএখনো রেগে আছো?
আমিঃ—-।
সিমিঃদেখছি কতক্ষণ রাগ থাকে।আমি নাহলে ত কোন কাজও হবেনা। কে তোমার দেখাশুনা করবে তাই দেখবো।
.
আমিঃ—-।
সিমিঃআচ্ছা আমিই সরি। দাও মাথাটা টিপে দি।
আমিঃনা থাক।
সিমিঃথাক মানে?সারারাত জেগে থাকবা নাকি?দাও বলছি।(কেড়ে নিয়ে)
.
আমিঃহয়েছে ঘুমাও।
সিমিঃসত্যি কমেছে?
আমিঃহুম।
.
সিমি আমাকে বুকে টেনে নিল।
.
আমিঃকি।
সিমিঃচুপ করে ঘুমাও।কথা বলবা না।( কপালে চুমু দিল)
.
সিমিঃউউ।
আমিঃকি হলো?
সিমিঃঠোট জ্বলছে।
আমিঃকেন?
সিমিঃতোমার কপালে মলম আছে আর চুমু দিয়েছি তাই।
আমিঃও।
সিমিঃকি ও?
আমিঃউম্ম উম্ম।
সিমিঃকি হলো?
আমিঃএতক্ষন ধরে ঠোট চেপে ধরে আছো মেরে ফেলবে নাকি?
সিমিঃসবসময় বাজে কথা বলো কেন?ঝাল লেগেছে তাই একটু দিলাম।
আমিঃহুম হয়েছে।এবার ঘুমাও সকালে বের হতে হবে।
সিমিঃআচ্ছা। তারআগে জড়িয়ে ধরো। নাহলে ঘুমাব না।

.

আমিঃএত সুন্দর করে সেজেছো কেন?সবাই ত তাকাবে তোমার দিকে।
.
সিমিঃতুমিও ত কম না। মেয়েরা ত তোমার দিকে তাকাবে।
আমিঃহু কইছে।
.
সিমিঃচলো চলো বের হও।

.

সবাই এখানে উপস্থিত।তবে ব্যাটা উজ্জলও এখানে আছে।তাই কেমন যেন লাগছে।
.

যাইহোক সারারাস্তায় সবাই মজা করলাম।

হোটেলে এসে
যারা মিঙ্গেল তাদের জন্য একটা করেরুম আর সিঙ্গেলদের জন্য আলাদা আলাদা রুম।
.
সিমি রুমে ঢুকলো।
আমিও রুমে ঢুকতে যাব তখন কেউ

তখন ইতি হাত ধরে টান দিল।
.
আমিঃকি হয়েছে? হাত কেন টানলেন?
.
ইতিঃএটা ম্যাডামের রুম। আপনি কেন
ঢুকছেন?
.
আমিঃআপনাদের ম্যাডাম হলেও আমার
বউ। তাই একরুমে ঢুকছি।
.
ইতিঃকিইইই? আপনি বিবাহিত?
.
আমিঃজি।কেন জানেন না?
.
ইতিঃনা। (মুখ গোমড়া করে)
.
আমিঃও।আচ্ছা বাই।
.
ইতিঃহুম বাই।
.
ইতি সামনের রুমে ঢুকলো। আর উজ্জলকে
দেখলাম তার পাশের রুমে ঢুকতে।
.
যাইহোক রুমে ঢুকি।
.
সিমিঃএখানে এসে বউকে ছেড়ে অন্য
মেয়ের সাথে কি কথা হচ্ছিল শুনি।
.
আমিঃনা মানে জিজ্ঞেস করছিল আমি
এইরুমে কেন ঢুকছি।
.
সিমিঃতুমি কি বললে?
.
আমিঃআমরা যা হই তাই বললাম।
.
সিমিঃকি বলছো তুমি? তারমানে ঐ
মেয়েটা জানতো না যে তুমি বিবাহিত?
.
আমিঃনা।
.
সিমিঃহুম বুঝলাম।
.
আমিঃকি বুঝলে?
.
সিমিঃঐ মেয়েটা এইজন্য সবসময় তোমার
পিছনে লেগে থাকতো।
.
আমিঃহুম।
.
সিমিঃযাও ফ্রেশ হয়ে আসো। অনেক
ক্লান্ত লাগছে একটু ঘুমাব।
.
আমিঃআচ্ছা।
.
সিমিঃকি আচ্ছা? ফ্রেশ হয়ে এসে বুকে
নিয়ে ঘুম পাড়াও।
.
আমিঃতুমি কি বাচ্চা নাকি?
.
সিমিঃকি বললা? যখন প্রেম করতা তখন
ত খুব বলতা রোজ বুকে নিয়ে ঘুম পাড়াব ।
মাথায় হাত বুলিয়ে দিব। আরো কত কি
বলেছো। আর এখন বাচ্চা বলছো।
পুরাতনকে ত আর ভাল লাগবে না।বুঝি
বুঝি সব বুঝি।
.
আমিঃকিচ্ছু বুঝো না। অপেক্ষা করো
আসছি।
.
ফ্রেশ হয়ে এসে দেখি সিমি এখনো
দাঁড়িয়ে আছে।
.
আমিঃকি হলো দাঁড়িয়ে আছো কেন?
.
সিমিঃতো কি করবো?
.
আমিঃতুমি ঘুমাবে না?
.
সিমিঃঘুমাব। তবে তোমায় নিয়ে।
বলাতো যায়না আবার কোথাই চলে যাও।
.
আমিঃকোথায় যাব মানে?
.
সিমিঃকোলে করে নিয়ে গিয়ে ঘুম
পাড়াও।
.
আমিঃআচ্ছা আসো।
.
কোলে করে বিছানায় নিয়ে এলাম।
.
সিমিকে শুয়ালাম।
তারউপর আমি শুয়ে পড়লাম।গালে ছোট
করে চুমি দিলাম।
.
সিমিঃআহারে কত্ত রোমান্টিক।
.
আমিঃশুধু তোমার জন্য।
.
সিমিঃচুপ করে শুয়ে পড়ো।রোমান্সের
সময় এটা?
.
আমিঃরোমান্সের কোন সময় হয়না।
.
সিমিঃবুঝছি বাবু।তবে এখন আমি খুব
ক্লান্ত। পরে এসব হবে।
.
আমিঃনা। তুমি পরে দিবানা আমি
জানি।
.
সিমিঃদিব ত।
.
আমিঃসত্যি?
.
সিমিঃসত্যি দিব।এখন ঘুমাও।
.
সিমির কাঁধে মুখ ডুবিয়ে ঘুমিয়ে পড়লাম।
.
.
পরদিন
সিমিঃজান শুনছো।
.
আমিঃহুমম বলো।
.
সিমিঃউঠো সকাল হয়েগেছে।
.
আমিঃআসোনা সোনা আরেকটু ঘুমায়।
.
সিমিঃএখানে কি ঘুমাতে এসেছো
নাকি?
.
আমিঃনা।
.
সিমিঃতাহলে উঠে ফ্রেশ হয়ে আসো।
ওয়েটার খাবার দিহয়েগেছে।
.
আমিঃহুম উঠছি।
.
ফ্রেশ হয়ে এসে দুজনে খাবার খেলাম।
.
সিমিঃজান বিকেলে সমুদ্রের কিনারায়
হাটতে যাব কিন্তু।
.
আমিঃবিকেলে কেন? এখন চলো।
.
সিমিঃআনরোমান্টিক ছেলে তুমি
একটা।সকালে কেন যাব।বিকেলে যখন
সূর্য অস্ত যাবে তখন হাটতে অন্যরকম
অনুভুতি হয়।
.
আমি সিমির উপর চেপে বসলাম।ঘাড়ে
গলায় কিস করতে থাকলাম।
.
সিমিঃকি করছো?
.
আমিঃতুমিই ত বললে আমি
আনরোমান্টিক।তাই রোমান্টিক হওয়ার
চেষ্টা করছি।
.
সিমিঃএইভাবে হঠাৎ করে কেউ
রোমান্স করে?
.
আমিঃআমি করি।
.
সিমিঃএখন ছাড়।
.
আমিঃআমি জানতাম তুমি আমাকে
দিবানা।কক্ষনো কথা রাখ না তুমি।
.
সিমিঃআহারে বাবু বুঝি খুব কষ্ট পাচ্ছে?
আচ্ছা এসো একটু আদর করেদি।
এইবলে ঠোটে ঠোট ছুয়িয়ে দিল।
.
সিমিঃবাবু আর লাগবে?
.
আমিঃহুম। তবে কিসের থেকেও বড় কিছু।
.
সিমিঃযা ফাজিল।
.
আমিঃফাজিল তো ফাজিল। আজকে কিছু
একটা হবেই হবে।
.
সিমিঃধ্যাত এভাবে কেন বলছো। (লজ্জা
পেয়ে)
.
আমিঃলজ্জা পেতে হবেনা।

.

বিকেলবেলা সবাই একসাথে ঘুরতে বের
হয়েছি।
.
যে যেভাবে ইচ্ছা ঘুরে বেড়াচ্ছে।
আমি আর সিমি সমুদ্রের কিনারা দিয়ে
একে অন্যের হাত ধরে হেঁটে চলেছি।
.
সূর্য প্রায় ডুব ডুব অবস্থা।
সিমিঃজান একটু নিচু হও।
আমিঃউহুম। তুমি উঁচু হও।
সিমিঃআমিকি হাতে পাব নাকি
তোমায়?
.
আমি সিমির কোমরে হাত দিয়ে উচু
করলাম।
সিমি তার দুহাত দিয়ে আমার গলা
পেঁচিয়ে ধরলো।
তারপর ঠোঁটে ঠোঁট ডুবিয়ে দিল।
.
সিমিঃজীবনের একটা জিনিস পূর্ন
হলো।
.
আমিঃকি?
সিমিঃরোমান্টিক সময়ে রোমান্টিক
অবস্থায় কিস করা।
.
আমিঃতাই বুঝি?
সিমিঃহুম।এখন চলো হোটেলে যায়।
—-+-+
আজকে মনটা ভালই লাগছে।কারন উজ্জল
সিমির কাছে আসেনি।
সিমি সম্পূর্ন সময় আমার সাথে
কাটিয়েছে।।
.
.
সকালবেলা ঘুম থেকে উঠে দেখি সিমি
পাশে নেই।
এমনকি অফিসের কেউ নেই হোটেলে।
কোথাই গেল সবাই?
হোটেল থেকে সমুদ্রে গেলাম।
সবাই গোসলে ব্যাস্ত।
সিমিকে দেখছি উজ্জলের পাশে গোসল
করছে।শরির প্রায় বুঝা যাচ্ছে সিমির।

উজ্জল একনজরে তাকিয়ে আছে সিমির দিকে।
চোখের স্বাদ মিটাচ্ছে উজ্জল।
.
এইদিকে আমার শরির রাগে ফেটে যাচ্ছে। মন চাচ্ছে এখনি সিমির চুলের মুঠি ধরে দু চারটে চড় লাগিয়ে দি।
.
আমি কিনারায় গেলাম।
আমিঃসিমি। (জোরে)
.
সিমিঃওয়েট। আসছি।
.
সিমি আমার কাছে এলো।
.
সিমিঃঘুম ভাঙ্গলো তোমার।
.
আমিঃহুম ভাঙ্গলো। না ভাঙ্গলে ত দেখতেই পেতাম না তোমার এই আলাদা রুপ।

সিমিঃআলাদা রুপ মানে?
.
আমিঃএসব কি কাপড় পড়ে আছো যে তোমার শরির বুঝা যাচ্ছে।
.
সিমিঃগোসল করছিলাম ত।তাই হয়তো ভিজে গিয়ে লেপ্টে গেছে।সবারই ত এক অবস্খা।
.
আমিঃসবার আর তোমার মধ্যে পার্থক্য রয়েছে।
.
সিমিঃকি?
.
আমিঃসবাই তাদের স্বামির সাথে আছে।আর তুমি আছো তোমার প্রে।
.
সিমিঃকি হলো পুরোটা বলো।
.
আমিঃআমার বলতেও ঘৃনা হচ্ছে আর তুমি শুনতে চাও?
.
সিমিঃতুমি বুঝছো না কেন এটা কমন।তাছাড়াও সে আমার ফ্রেন্ড।
.
আমিঃওকে ফাইন।।
.
আমিও প্রায় সবকিছু খুলে নেমে গেলাম সমুদ্রে।
যেখানে ইতি আছে সেখানে গেলাম।
.
আমিঃহাই।
.
ইতিঃহাই। কেমন আছেন?
.
আমিঃভাল আপনি?
.
ইতিঃভাল।

আমি আর ইতি গল্প করছি।
সিমি তাকিয়ে আছে।
.
সিমি এসে আমাকে টানতে টানতে হোটেলে নিয়ে গেল।
.
সিমিঃকি করছিলি ওর সাথে?
.
আমিঃযা দেখেছ।
.
সিমিঃকেন ওর কাছে গেলি?
.
আমিঃএসব ত কমন তাইনা।আর ও আমার ফ্রেন্ড।
.
সিমিঃলজ্জা করেনা বউ রেখে অন্যমেয়ের কাছে যেতে।
.
আমিঃতোমার লজ্জা করেনা ঘরে স্বামি রেখে পরপুরুষের সামনে অর্ধনগ্ন হয়ে গোসল করতে।
.
সিমিঃ—-।
.
আমিঃকি হলো উত্তর দাও।
.
সিমিঃঠিক আছে আজ থেকে উজ্জলের সাথে কম কথা বলব। আর তুমি ইতির সাথে কম কথা বলবে।,
.
আমিঃআচ্ছা।
.
সিমিঃসাওয়ার নাও।
.
আমিঃএকাই নিব?তুমিও চলো।
.
সিমিঃহুস।একাই যাও।
.
আমি আর কোন কথা না বাড়িয়ে সিমিকে কোলে করে বাথরুমে নিয়ে আমি আর কোন কথা না বাড়িয়ে সিমিকে কোলে করে বাথরুমে নিয়ে গেলাম।
.

গোসল শেষে খেয়ে দেয়ে রুমে এলাম।
.
সিমি ফোন চার্জে দিল।
আমি সিমিকে কোলে করে বিছানায় নিয়ে এলাম।
.
আমিঃসিমি তুমি কি বুঝতে পারছো আমাদের মধ্যে ইদানিং অতিরিক্ত মাএায় ঝগড়া হচ্ছে।
.
সিমিঃহুম।
.
আমিঃসব হচ্ছে উজ্জল আর ইতির কারনে ।তাদের থেকে দুরে থাকতে হবে।
.
সিমিঃহুম থাকবো।
.
আমিঃতাহলে একটা চুমুদি।
.
সিমিঃনা আজ আর গোসল করতে পারব না।
.
আমি রাগ করে শুয়ে পড়লাম।
.
সিমি হঠাৎ ঠোটে ঠোট চেপে ধরলো

চলবে …

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *