সিনিয়র বউয়ের জুনিয়র বর -part-2

💏 সিনিয়র বউয়ের জুনিয়র বর 💏
পার্ট  -২

Writer By Misti prem mithun KhAN 💏

অবন্তির সাথে কোন কথা বলি নাই
সেইদিন অন্তত বালিশ আর কোল বালিশটা পাইছিলাম আজ কিছু ই নেই খালি ফ্লোরে একদম ঘুম আসছে না কিছু করার নেই কালককেই তো বাসায় চলে যাবো
আজকের রাতটা না হয় একটু কষ্টই করি
অবন্তির দিকে তাকাই দেখলাম ঘুমাচ্চে অনেক মায়াবি লাগছে
কিন্তু বাস্তব লাইফে পুরা গুন্ডি একটা
পরের দিন সকালে ঘুম থেকে উঠে নাস্তা করে সবার কাছ থেকে বিদায় নিয়ে অবন্তি আর আমি চলে আসলাম আমাদের বাসায়
আজ ১০দিন হলো আমাদের বিয়ে হইছে এই ১০ দিন কলেজ যাওয়া হয়নি
আর অবনি আমাকে ভালো না বাসলেও আমার অসুস্থ আম্মুর অনেক যত্ন নেয় ঠিকমত খাওয়ানো ঔষধ খায়ানো সব অবনিই করে
মেয়েটা হয়তবা আমাকে মেনে নিতে পারছে না পিচ্চি বলে
যাইহোক আজ ১০ দিন পর কলেজ যাবো তাই সকালে ঘুম থেকে উঠে ফ্রেশ হয়ে নিলাম এই কয়দিন অবনির সাথে তেমন কথা হয়নি
ফ্রেশ হয়ে নিচে গিয়ে দেখলাম অবনি নাস্তা তৌরি কইরা টেবিলে রাখছে আব্বু নাস্তা করছে
আমাকে দেখে আব্বু,,
মিঠুন কলেজে যাবিনা আজ
আমি হুম,,,
আব্বু,,, অবন্তি কে ও নিয়ে যাস ওকে ওর ভার্সিটিতে নামাই দিয়া তোর কলেজে চলে আসিস
আমি,,,হুম আব্বু
একটু পর রেডি হইয়া আম্মুর রুমে গেলাম আম্মুকে বলতে আমি কলেজ যাচ্ছি
আম্মুর রুমে গিয়ে দেখলাম অবন্তি আম্মুকে ঔষধ খাওয়াচ্ছে
আমি,,, আম্মু আমি কলেজ যাচ্চি
আম্মু,,, অবন্তিও যাবে বলছিলো সাথে নিয়ে যা আমি হুম
বাসার বাইরে দাড়াচ্চি আসতে বলো
আমি গিয়ে
বাইকটা বের করে বাড়ির বাইরে দাড়লাম একটু পরে অবনি আসলো
অবনির দিকে তাকাই আমি চোখ সরাতে পারছিনা সত্যি মেয়েটা অনেক মায়াবি
না মায়ায় পড়লে চলবে না
ও তো আমাকে সামি হিসেবে মানেই না
আমি বাইকে উঠলাম
আর অবন্তি ও আমার পিছনে বসলো
অবন্তি দেখ আমার কোন ইচ্ছে ছিলো না তোর সাথে যেতে কিন্তুু
আব্বু আম্মু বলছে তাই যাচ্চি শোন পিচ্চি বেশি ব্রেক চাপবি না
তাহলে তোর খবর আছে
আর কিছুক্ষন পরে অবনির ভার্সিটিতে পৌছে গেলাম সোজা ভার্সিটির ভিতর বাইক নিয়া ডুকে
গেলাম অবন্তিকে নামাই দিলাম অবন্তি সোজা ওর বান্ধবিদের কাছে চলে গেলো আমার দিকে একবার তাকালো ও না
কিন্তু কেউ জেনো আমাকে ডাকছে
পিছনে তাকাই দেখি আরিন আপু
আমি অরিন আপুর কাছে আগাই গেলাম অরিন আপু,,কি রে পিচ্চি কেমন আছিস
আমি,,, হুম আপু ভালো তুমি
অরিন আপু হুম ভালোই কিন্তু পিচ্চি তোমার দেখা পাওয়া যায়না কেন
আর তোমার বাইকের পিছনে অবনি বসে ছিলো কেন
আমি,,, আপু আপনি অবনি কে চিনেন। অরিন আপু,, হুম চিনবো না কেনো ও তো আমারই বান্ধবি আমি আসলে আপু ও আমার ওয়াইফ।। অরিন আপু,,, ওই
পিচ্চি তুই কবে বিয়ে করলি হুম
আমাকে জানালিও না আমি আপু সব কিছু হঠাৎ হইছে তাই বলতে পারি নাই।। অরিন আপু হুম হইছে
আমি আচ্ছা বাই আপু আমার কলেজ এ লেট হয়ে যাবে না হয় অরিন আপু হুম বাই পিচ্চি
অরিন আপুর সাথে আমার যেভাবে পরিচয় হয় একদিন কলেজ থেকে বাসায় ফিরতে ছিলাম আর সামনে আগাতেই দেখলাম একজন লোক একসিডেন্ট করছে দেখে আমি হচপিটালে নিয়ে যায় আর ওইটাই অরিন আপুর আব্বু ছিলো
না দেরি হয়ে যাচ্চে বাইক নিয়ে চলে আসতে লাগলাম কিন্তু তখনকার কিছু মেয়ে মানে অবন্তির বান্ধবিরা ডাকতে ছিলো তাই তাদের কাছে গেলাম
কিন্তু এখন এদের মধ্যে অবন্তি কে
দেখছি না
ওদের ভিতর থেকে একটি মেয়ে ওই পিচ্চি অবন্তি তোমার কে হয়
আমি আমার ওয়াইফ,, এবার সবাই হা হা হা কইরা হেসে উঠলো বুঝলাম না আমি তো হাসার কথা বলি নাই
আরেকটা মেয়ে তোর মত পিচ্চি কেমনে অবনির হাজবেন্ড হসরে
আমি দেখেন আপু আমি সত্যি বলছি আর আমার কলেজ এর লেট হইয়া যাচ্চে বাই
সোজা আমার কলেজ এ চলে আসলাম
বন্ধুদের সাথে আড্ডা দিলাম ক্লাস করলাম
ছুটির পর অবনির জন্য অপেক্ষা করতে লাগলাম
একটু পরে অবনি আসলো কিন্তুু আমার দিকে অনেক রাগি ভাব নিয়ে তাকাই ছিলো এসেই বাইকের পিছনে বসে চল বাসায় চল
আমিও বাইক স্টাড দিয়ে বাসায় চলে আসলাম এসে আমার রুমে চলে আসলাম একটু পর অবনি ও আসলো
অবনি,, এসেই জোরে ঠাস ঠাস করে দুই গালে দুইটা চড় দিয়া দিলো
অবনি,, ওই তোরে কে বলতে বলছে আমি তোর ওয়াইফ আমি তো বলছিই তোকে আমি তোকে সামি হিসেবে মানিনা মানবো না
তাহলে কেন বলতে গেলি তুই কি শান্তিতে বাচতে দিবিনা আমায়
যা আমার চোখের সামনে থেকে
রুম থেকে বেড়িয়ে আসলাম
এসে আম্মুর রুমে গেলাম আম্মু কিরে কলেজ গেছিলি আমি হুম আর তোর দুই গালো দাগ কিসের
আমি আম্মু কিছুইনা,, আম্মু বল কিসের দাগ আম্মু বলছিনা কিছু ই না,, চোখে পানি চলে আসছে তাই কিছু না বলেই চলে আসলাম রুম একটু পর দেখলাম অবনি আম্মুর রুমে আসলো
আমি ছাদে চলে গেলাম
বসে আমার অতিত গুলো ভাবতে লাগলাম আব্বু আম্মুর ভালো বাসা গুলো
একটা কথা অবন্তির সেবায় আম্মু এখন অনেকটায় সুস্থ
না কালকে অবনির বান্ধবিদের কাছ থেকে ক্ষমা চেয়ে নিবো
আর বলে দিবো আমি মিথ্যা বলছি
অবনি আমার কেউ ওই নই
রাতে ডিনার করে রুমে গিয়ে
নিচে ফ্লোরে শুয়ে পড়লাম আর অবনি উপরে
সকালে উঠে ফ্রেশ হয়ে নাস্তা করে
রেডি হয়ে বাইক নিয়ে বাসার বাইরে দাড়ালাম একটু পর অবনি আসলো কিন্তুু অবনি একটা রিকশাতে উঠে চলে গেলো
না কালকের ভুলটার জন্য হয়তবা মেয়েটা অনেক রাগ করছে
আমি ও বাইক নিয়ে অবনিদের ভার্সিটিতে চলে গেলাম গিয়ে কালকের সেই মেয়েদের কাছে গেলাম মেয়েগুলো আমাকে দেখে একজন ওই পিচ্চি এখানে কি আর আজ অবনি কোথায়
আমি আসলে আপু একটা কথা বলার জন্য আসছি কি বল ওদের ভিতর একটা মেয়ে।। আমি,, আসলে আপু অবনি আমার কেউ ওই হয় না কালকে মিথ্যা বলছি
ওদের ভিতর থেকে আরেকটা মেয়ে আমি তো বলি অবনি তোর অনেক বড় ওর সাথে তোর কেমনে বিয়ে হয়
আরেকটা মেয়ে এগিয়ে এসে ঠাস করে একটা চড় দিছে লুচ্চা পোলা কোথাকার যাকে তাকেই বউ বলতে ইচ্চে করে না
কালকে তোর জন্য অবনি আমাদের উপর রাগ করছে
আমি ছড়ি আপু
যা এখান থেকে
আমি পিছন ফিরে দেখি অবনি
অন্য দিকে তাকাই চলে আসতে লাগলাম অবনির বান্ধবিরা ছড়ি অবনি ছেলেটা মিথ্যা বলছিলো তার জন্য তোকে ভুল বুঝছি
সিনথিয়া ওকে চড় দিয়া দিচে লুচ্চা পোলা বলে
ওই অবনি তুই খুশি হস নাই

অবনি,, হুম
আমি বাইক নিয়ে চলে আসলাম
আজ মনটা একদম ভালো নেই
তাই বাসায় চলে আসলাম
বিকেলে অবনিও আসলো
অবনি এসেই ওই পিচ্চি আবার কেন গেছিলি ওদের কাছে
আমি,,, যে ভুলটা করছি সেইটা শুধরে নিতে
আর আমি পিচ্চি হতে পারি কিন্তু এতটা খারাপ নয় আর আমি চাইনা কেউ আমার জন্য কষ্ট পাক
অবনি,,, তাই বলে অপমান হতে যাবি ওদের কাছে তোকে তো বলি নাই যেতে আমি,,, যাইহোক পিচ্চি কালকের জন্য ছড়ি আমি অনেক রেগে ছিলাম তাই মারছিলাম
আমি,,, ভুলটা আমার ছিলো তাই মারছেন এর জন্য ছড়ি বলার কিছু নেই
আর কখনো এমন ভুল হবে না পারলে ক্ষমা করে দিয়েন আমাকে
অবনি,,, ওই পিচ্চি এখনো রাগ করে আছিস আমার উপর,, আমি কেন আপনার উপর রাগ করবো রাগ তো তার উপরই করা যায়
যার উপর অধিকার থাকে
বাইরে চলে আসলাম
বন্ধুদের সাথে আড্ডা দিয়ে রাতে বাসায় আসলাম
একটু পর অবনি,,,ওই কোই ছিলি এতোক্ষন আমি বাইরে
অবনি খাওয়া দাওয়া বাদ দিয়ে পড়াশোনা বাদ দিয়ে এত বাইরে কি হুম
আর শোন আম্মু বলে দিছে কালথেকে আমার কাছে পড়বি ওকে আমি,, হুম
অবনি চল এখন ডিনার করবি
আমি হুম ডিনার করে গিয়ে রুমে শুয়ে পড়লাম সকালে
উঠে ফ্রেশ হয়ে কলেজে যাওয়ার জন্য রেডি হলাম
একটু পর অবনি নাস্তা করার জন্য ডাকলো নাস্তা করে নিলাম
অবনি একটু থাম আমি ও জাবো
অবনিকে নিয়ে চলে গেলাম অবনি আজ আমার ভার্সিটি থেকে একটু দূরে নামাই দিবো আমি হুম অবনিকে ওর ভার্সিটি থেকে একটু দুরে নামাই দিলাম অবনি,, শোন তোর কলেজ ছুটি হলে দাড়াস
আমি চলে আসবো আমি হুম
আমার কলেজ ছুটি হলো অনেক খানি দাড়াই আছি কিন্তু অবনি আসছে না হঠাৎ বৃষ্টি শুরু হলো অনেক জোরে একটু পর দেখলাম অরিন আপু আসছে ছাতা নিয়ে আমার কাছে এসে কিরে এই বৃষ্টির ভিতর এখানে কি করছিস
আমি আসলে আপু অবনির আসার কথা ছিলো কিন্তু আসছে না,,
অরিন আপু আসলে অবনি অনেক সুন্দর আর কাউকে পাত্তা দেয় না আজ ভার্সিটিতে নতুন একটা ছেলে আসছে অনেক বড় লোকের ছেলে
অবনির সব বান্ধবির অবনির সাথে বাজি ধরছে ওই ছেলেকে অবনি পটাতে পারলে ওর বান্ধবিরা ও যা চাইবে তাই দিবে তাই অবনি ওই ছেলের বাইকর গেছে আর ওই ওকে হয়তো ড্রপ করে দিছে
অরিন আপু চল এখন বাসায় এভাবে ভিজলে অসুখ করবে
অরিন আপুকে ওদের বাসায় রেখে এসে বাসায় এসে দেখি অবনি চলে আসছে।।।

তাহলে কি অরিন অপুর কথায় সত্যি ওই ছেলেটার বাইক এই আসছে অবনি
আর অরিন আপু কেন মিথ্যা বলবে আমাকে
রুমে ডুকতেই অবনি ওই এত্তো লেট কেন আর ভিজে গেছিস কেনো
আমি,,, ওই আপনি আসার কথা বলে আসলেন না কেন
অবনি,,, ছড়ি রে এক বান্ধবি ধরছিল তাই ওর সাথেই আসছি
কত্তোবড় মিথ্যাবাদি
ও তাই বলেন
অবনি কিন্তু তুই ভিজলি ক্যামনে
আমি,, এমনিতেই আসলে বৃষ্টিতে অনেক দিন ভেজা হয় নাই তো তাই ভিজছি
অবনি,,, ওই তাড়া তাড়ি গিয়ে ভেজা কাপড় চেন্জ কর
না হয় জর আসবো
আমি,, আপনাকে ভাবতে হবে না আমাকে নিয়ে
অবনি,,, মানে
আমি,, কিছুই না রুমের বাইরে চলে আসলাম গোসল করে ড্রেস চেন্জ করে
আম্মুর রুমে গেলাম
আম্মু শুয়ে আছে তাই আর ডাকলাম না
একটু খাওয়াদাওয়া কইরা বন্ধুদের সাথে আড্ডা দিতে গেলাম আসলাম রাতে কিন্তু কেমন যেনো শরীরটা ভালো লাগছে না বাসায় এসে আব্বু আমি অবনি আম্মু সবাই একসাথে ডিনার করলাম
করে
রুমে চলে আসলাম
একটু পর অবনি আসলো
অবনি ওই তোর কি পড়াশোনা কিছু লাগে না যা তোর বই গুলো নিয়ে আয়,,,
আমি,,, ইচ্চে করছে না পড়তে আপনি পড়েন আমি ঘুমাবো
অবনি আম্মু বলছিলো তাই পড়াতে চাইছিলাম
এখনতোর ইচ্চা
আমি কিছু না বলে শুয়ে থাকলাম
মাথাটা কেমন ভারি হয়ে আছে শরীর টাও একটু গরম মনে হচ্চে
মাঝরাতে কেমন জেনো কাপতে ছিলাম জরটা অনেক বেড়ে গেছে।
একটু পর অবনি উপর থেকে ওই পিচ্চি এমনে কাপতাছোস ক্যান
আর ভুল বকতে ছিলাম
অবনি আমার কাছে এসে আমার কপালে হাত রাখলো অবনি তোর শরীর তো জরে পুরে যাচ্চে এতো রাতে কি করি
তুই একটু কষ্ট করে শুয়ে থাক পিচ্চি আমি ঔষধ নিয়ে আসছি
একটু পর অবনি আসলো
আমাকে তুলে ঔষধ গুলো খাওয়াই দিলো
আর অবনি আবার যেয়ে শুয়ে পড়লো কিন্তু জর টা কোন ভাবেই কমছে না যেনো বেড়েই চলছে
আর কাপনিটাও বেড়ে গেছে
অবনি,,, দেখে আবার নিচে এসে কিরে জর কি কমছে না কপালে হাত দিয়ে
উফ এখনো তো অনেক জর
অবনি,, ওই পিচ্চি উঠ উপরে ঘুমাবি
আমি,,, না এখানেই ঠিক আছি আপনি ঘুমান গিয়ে না হয় আপনার শরীর খারাপ করবো,,,
অবনি,, ওই এতো ঙ্গান দিতে বলছি তোরে তাই বলে আমার হাত ধরে উপরে মানে অবনির পাশে শুয়ে দিলো আর অবনি আমার পাশে শুয়ে পড়লো
কিন্তু জরটা জেনো বেড়েই চলছে আর কেমন ভুল বকতে ছিলাম
ওই বউ আমি পিচ্চি বইলা কি একটু ভালবাসা যাই না
দেখো বউ একদিন তোমাকে ছেড়ে অনেক অনেক দুরে চলে যাবো
চাইলেও আর ফিরে পাবা না
অবনি আমার দিকে ফিরে দেখতাছে আমার শরিরটা আরো বেশি কাপছে আর জর বেড়ে গেছে
অবনি কি করবে বুঝতে পারছে না
অবশেষে আমাকে জড়ায় ধরলো শক্ত করে নিজের বুকের মাঝে
এবার কিছুটা হলেও কাপুনি টা কমছে
এভাবে জড়াই ধইরা সারা রাত ঘুমালো
সকাল বেলাই উঠে দেখি আমিও অবন্তিরে জড়ায় ধইরা আছি
না এইটা ঠিক না অবন্তি তো বলছেই আমাকে সামি হিসেবে মানে না
এখন জর অনেকটাই কম
তাই অবন্তির হাত সরাই উঠতে গেলাম অবন্তি আরো শক্ত করে জড়াই ধরলো
কি করি এখন অবন্তি,,
ওই পিচ্চি ঘুমাইতে দে তো সার রাত ঘুমাতে দিস না
এমনিতেই
আমি জানি অবন্তি এখনো ঘুমে তাই ভুল বকছে
আমি আমাকে ছাড়াতে চেষ্টা করলাম
এইবার অবন্তি,, জেগে গেছে
অবন্তি তোর সাহস তো কম না আমারে জড়াই ধরস
ঠাস করে একটা চড় দিয়া দিছে রাতে ঘুমাতে দিছি বলে এভাবে সুযোগ নিবি লুচ্চা পোলা কোথাকার
অবনি তাকাই দেখছে অবনি আমাকে এখনো জড়ায় ধরে আছে
তাই তাড়াতাড়ি ছেড়ে দিলো
আর বল্লো শোন আমার আশে পাশেও ও দেখি না যেনো তোরে
আমি উঠে চলে আসলাম
জর কিছুটা কমছে
ফ্রেশ হয়ে আম্মুর রুমে গেলাম
আম্মু কি কিরে রাতে নাকি অনেক জর আসছিল আমি কে বল্ল,,
আম্মু,, অবনি
আম্মু কপালে হাত দিয়া তোর জরতো এখনো কমে নায়
আমি হুম আম্মু
আজ অসুস্থ তাই কলেজ যাবো না
একটু পর রুমে গেলাম গিয়ে দেখি অবনি নেই
অবনির ফোনে দেখলাম হঠাৎ আলো জলে উঠলো
তাই ফোনের কাছে গিয়ে দেখলাম মেসেজ আসছে
বাবুনি কখন আসবা তোমাকে অনেক মিছ করছি
ফোনটা রেখে চলে আসলাম কালকের ওই ছেলেটা হবে হয়তো
রুম থেকে বের হয়ে চলে আসলাম আম্মুর রুমে আম্মুর পাশে বসে কথা বলতে লাগলাম
একটু পর অবনি আসলো
অবনি,, আম্মু আমি ভার্সিটি যাচ্চি
আম্মু,,, না গেলে হয় না আজ
অবনি আম্মু একটু কাজ আছে যেতেই হবে আম্মু আচ্চা মা দেখে শুনে যাস
অবনি,, হুম আম্মু
অবনি বেরিয়ে চলে গেলো
আমিও আমার রুমে গিয়ে শুয়ে পড়লাম বিকেলে ঘুম থেকে উঠলাম কিন্তু উঠতে গিয়ে উঠতে পারছিনা
কি করবো বুঝতে পারছিনা
মাথাটা কেমন ঘুরছে
আম্মুর রুমে গেলাম আম্মুকে খাবার খাওয়াই দিয়ে ঔষধ খাওয়াই দিলাম অবনিটাই রোজ আম্মুকে খাওয়ায় দেই
আজ আসতে অনেক দেরি হচ্চে
আম্মু,, কি বাবছিস
আমি কিছু ই না আম্মু আমার ঔষধ ফুরাই গেছে আনতে পারবি আমি হুম
আম্মু বলছে কি করি এখন
না কষ্ট হলেও যেতে হবে
বাইকটা বের করে কোন রকম চলে গেলাম
ফারর্মেসির দিকে কেমন মাথা ঘুরছে ফার্মেসি থেকে ঔষধ নিলাম টাকা গুনে দিয়ে বাইটা ঘুরাতে গিয়ে দেখালাম একটা কার আসছে আর একটা ছেলে তার পাশে অবনি আর পিছনের ছিটে সিনথিয়া নামের সেইমেয়েটা
কার টা এসেই সোজা ধাক্কা দিয়ে দিলো আমার বাইকটাকে
আমি সাইডে পরে গেলাম আর লোকজন সবাই চলে আসলো
আর কারটা জোরে টান দিয়ে চলে গেলো
আর আমি রাসস্তার পাশে পড়ে মাথাটা ফেটে গেছে অনেক রক্ত বের হচ্ছে কয়েকজন এসে
আমাকে হসপিটালে নিয়ে গেলো

চলবে,,,,,♥♥♥♥♥

Related Posts

2 thoughts on “সিনিয়র বউয়ের জুনিয়র বর -part-2

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *