সিনিয়র বউ | স্বামী স্ত্রীর রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প

সিনিয়র বউ
,
Part-14
,
একটু পরে পাশের ঘর থেকে কিছু পড়ার আওয়াজ আসলো,,
কি হলো আবার,,,
একটু পরে রুহীও একটু চিৎকার করলো,,
এবার আর শুয়ে থাকতে পারলাম না
উঠে পাশের রুমে আসলাম ,,
কিন্তু রুমে তো লাইট ও জ্বালা নেই ,,,

“”” রুহী,,,
কোনো শব্দ নেই ,,,
“”” এই রুহী,,,
কিছু বলছে না ,,,
“”” এতো রাতে কি শুরু করলা,,

এবার পিছনে থেকে রুহী এসে আমায় জড়িয়ে ধরলো ,,,

“”” কি মহারাজ ,,,
“”” ঠিক আছো তো,,,
“”” কেন আমার আবার কি হবে ,,
“”” চিৎকার করলে যে,,,
“”” ওটা তো তোমায় এ রুমে নিয়ে আসার জন্য ,,,
“”” তারমানে এটা অভিনয় ছিলো,,,
“”” হুম ,,,
“”” সরো আমি ঘুমাবো,,,


রুহী গিয়ে দরজা বন্ধ করে দিলো,,,

“”” কি হলো দরজা বন্ধ করে দিলা কেন ,,,
“”” তুমি যাবা তাই না,, এবার যাও তো দেখি,,,
“”” কি শুরু করছো,,,
“”” কতদিন আমি বাইরে ছিলাম ,,,
“”” তো,,
“”” আজ তোমায় কাছে পাইছি ,,,, আর তুমি বলছো ঘুমাবে,,,
“”” আমি ঘুমাবো ছাড়ো,,,
“”” আচ্ছা ঠিক আছে তুমি যাও ঘুমাও ,,,

বউ বুঝি অভিমান করলো,,,
.
“”” তুমি ঘুমাবে না ,,,,
“”” না,,, তুমি যাও,,,
“”” চলো ঘুমাবো ,,,
“”” বললাম না ঘুমাবো না ,,, তুমি যাও,,,

রুহী বেডের উপর বসলো,,,,
এবার আমি ওর পাশে বসলাম ,,,

“”” এই পাগলী চলো,,,
“”” যাবো না আমি ,,,

কন্ঠ টা ভেজা মনে হচ্ছে ,,,

“”” এই তুমি কি কান্না করছো,,,
“”” না,, আমি কার জন্য কান্না করবো ,,,
“”” আরে বাবা আমি তো শুধু মজা করলাম তোমার সাথে ,,,
“”” ( কিছু বলছে না ,, )

রুহীকে পিছনে থেকে জড়িয়ে ধরলাম ,,,

“”” ছাড়ো আমায়,,,
“”” কেন,,, আমার বউকে আমি আদর করছি ,, তাতে তোমার কি,,,
“”” আমায় কাউকে আদর করতে হবে না ,,,
“”” বউ কি আমার অভিমান করেছে ,,,
“”” আহারে ,,

রুহী কিছু একটা বলতে যাবে
এর আগেই ওর ঠোঁট বন্ধ করে দিলাম,,,

একটু পরে
আমি শুয়ে আছি
রুহী আমার বুকের উপর শুয়ে ,,,

“”” চলো রুমে যাই ,,, রোজা নয়তো উঠে যাবে ,,,
“”” থাকি না আর কিছুক্ষণ,,,,
“”” পাগলী ঘুমাতে হবে না,, কাল তো অফিস আছে ,,,
“”” একটা কথা বলি,,,
“”” হুম বলো,,
“”” আমায় আর একটা বেবি দিবে ,,,
“”” রোজা তো এখনো ছোট ,,,
“”” তো,,,
“”” ও আর একটু বড় হোক তারপর ,,,
“”” ও তো বড় হইছে,,
“”” আর একটু বড় হোক,,
“”” আমার একটা বেবি চাই,,
“”” সেটা নিয়ে পরে ভাবা যাবে ,,, কাল অফিসে যাবে ,,
“”” হুম ,,,
“”” তাহলে ঘুমাতে চলো,,,

রুহীকে কিছু বলতে না দিয়েই কোলে তুলে রুমে নিয়ে আসলাম ,,,
আমি মাঝে
একপাশে রোজা
অন্য পাশে রুহী ,,,
দুজন কেই বুকের মাঝে নিয়ে নিলাম ,,,
,,

সকাল বেলা রুহী আমায় ডাকছে ,,

“”‘ এই ওঠো,,, আর কতো ঘুমাবা,,
“”” আর একটু ,,,
“”” কয়টা বাজে খেয়াল আছে ,,
“”” কয়টা,,,
“”” ৯ টা,,

“”” কি??? তুমি আমায় আগে ডাকবে না,,, রোজার স্কুলে যেতে হবে ,,,
“”” এই যে স্যার এতো তাড়াহুড়ো করার কিছু নেই ,, রোজাকে আমি স্কুলে দিয়ে আসছি ,,
“”‘ ওহহ আচ্ছা ,,, তাহলে তো আর কোনো চিন্তা নেই ,,,

রুহীকে টেনে নিয়ে আবার শুয়ে পড়লাম,,

“”” কি করছো,,,
“”” দেখতেই তো পাচ্ছেন ম্যাম,,, ,,
“”” অনেক হয়েছে ,, এখন ওঠো,,,
“”‘ একটু পরে ,,,
“”” অফিসে যাবে না ,,,
“”” হুম ,,,
“”” তাহলে ,,, তাড়াতাড়ি ওঠো,,,

উঠে ফ্রেশ হয়ে
নাস্তা করে রেডি হলাম ,,,

“”” আরে বাবা আপনি আজ শাড়ি পড়ছেন,,,
“”‘ কেন শাড়ি পড়তে বারন নাকি,,,
“”‘ না,, তবে শাড়িতে তোমায় খুব সে,,,,,
“”” কি বললা,,,
“”‘ কিছু না ,,,
“”” বলো কি বলছো,,, ( আমার কলার ধরে )
“”‘ বললাম শাড়িতে তোমায় সেই রকম লাগে ,,,
“”” তাই না ,,
“”” হুম এখন চলো,,,


একটু পরে দুজনেই অফিসে আসলাম ,,,

কেবিনে ঢুকেই তিনটা ডেস্ক দেখে রুহী অবাক হয়ে গেলো,,,


“”” এখানে তিনটা ডেস্ক কেন,,,,
“”” আংকেল নতুন একজন পিএ নিয়োগ দিছে ,,
“”” কেন,, আমি তো ছিলাম ,,,
“”” তোমার আর আমার নাকি রোমান্স করতে সারাদিন যাবে,,,
“”‘ কেন আমি কি কাজে ফাঁকি দেই,,,
“”” ঠিক তা নয়,,,
“”” তাহলে এই ডেস্ক এই রুমে কেন


আমার কিছু বলার আগে তুবা রুমে আসলো ,,,

“”” গুড মর্নিং স্যার ,,,
“”” গুড মর্নিং ,, মিস তুবা ও হচ্ছে রুহী,,, আপনার কোনো সাহায্য প্রয়োজন হলে ওর কাছে নিতে পারেন ,, আর রুহী ,,,

রুহীর দিকে তাকাতেই আমার কথা আটকে গেলো,,,

“”‘ আপনি একটু আমার সাথে আসবেন স্যার ( রুহী)
“”” কেন,,,
“”” একটু দরকারী কথা আছে ,,, আসুন ,,,


আপনারা থাকুন আমি গিয়ে শুনে আসি কি বলে ,,,

রুহীর পিছনে পিছনে আমি আসলাম,,
রুহী সোজা অফিস ক্যান্টিনে গেলো

“”” কি হলো এখানে আসলা কেন,,,
“”” সমস্যা কি ???
“”” কিসের সমস্যা ??
“”” কেন কোনো ছেলে কি সিভি দেয় নি ,,,
“”” দিছলো তো,, কেন,,,
“”” তাহলে বেঁচে বেঁচে এমন মেয়ে সিলেক্ট করছো কেন ,,,
“”” ও সব পরীক্ষায় পাস করছে তাই ,,,
“”” সত্যি ,, নাকি মিথ্যা ,,,
“”” সত্যি ,,,
“”” তাই বলে এমন একটা মেয়ে কে ,,
“”” মেয়ে টা কি দেখতে খারাপ ,,,
“”” খারাপ হলে তো কথাই ছিলো না,,,
“”” তাহলে ,,,
“”” সুন্দরী মেয়ের সাথে কাজ করতে খুব মজা লাগে তাই না ,,,
“”” এমা এমন কিছু না ,,, মেয়েটার মাঝে কিছু কম দেখলে তুমি ,,,
“”” না,, কোনো কিছুই কম নেই ,, ঢং টা সব কিছুর থেকে বেশি আছে ,,,
“”” মানে ,,,,


রুহী কিছু বলবে
এমন সময় তুবা আসলো,,

“”” স্যার একটু দরকার ছিল ,, আসবেন,,,
“”” আসছি ,,, তুমি আগাও,,,

তুবা মিষ্টি একটা হাসি দিয়ে চলে গেলো,,,

“”” রুহী চলো,,,

রুহী আমার হাত ধরে টান দিলো,,

“”” কি হলো,,,
“”” ( কিছু বলছে না)
“”” আটকালে কেন??
“”” আমার কিন্তু শরীর জ্বলে যাচ্ছে ,,,
“”” কিন্তু কেন??
“”” ও এমন করে হাসলো কেন???
“” ওর মুখটাই এমন হাসি হাসি ,,,
“”” তাই,,, আর আমার মুখ কি গোমড়া,,,
“”” সেটা না,, চলো যাই,,,
“” চলো,,,


রুহী আর আমি কেবিনে আসলাম,,,
রুহী রুহীর ডেস্কে গেলো
আর আমি আমার ,,,

আমি আমার ডেস্কে আসার পর তুবা একটা ফাইল নিয়ে আমার কাছে আসলো,,,,
তুবা আমার কাছে আসার পর থেকে রুহী ফাইল দেখা বাদ দিয়ে
আমাদের দিকে তাকিয়ে আছে ,,,


“”” স্যার এই জিনিস টা আমি বুঝতে পারছি না ,,,
“”” এই মেয়ে এদিকে আসো,,, আমি বুঝিয়ে দিচ্ছি ,,,

আমায় কিছু বলার সুযোগ না দিয়েই রুহী তুবাকে ডেকে নিলো,,,

আমি বসে ল্যাপটপে একটা সাইটের কাজ দেখছি,,,
এমন সময় ঘড়ির দিকে চোখ পড়তেই দেখি রোজার স্কুল ছুটি হওয়ার সময় হয়ে গেছে ,,,

“”” রুহী আমি রোজাকে আনতে যাচ্ছি ,,
“”” আমি কি আসবো স্যার আপনার সাথে ( তুবা)
“”” না,, তুমি আমার সাথে থাকো,,, কাজ আছে ,,, (রুহী)
“”” ঠিক আছে ম্যাম,,,
“”” তুমি দাঁড়িয়ে কি দেখো,, তাড়াতাড়ি যাও,, ছুটি হয়ে গেলে রোজা কান্না করবে ,,,
“”” হুম যাচ্ছি ,,,


আসতে আসতে দেরি হয়ে গেছে,,,
রোজা একা একা বসে কান্না করছে ,,,


“”” আমার আম্মুর কি হইছে ,,,
“”” তোমার সাথে কথা নেই ,,
“”” সরি আম্মু ,,, কাজ ছিলো ,,,
“”” আমার থেকে কাজ গুরুত্বপূর্ণ,,,
“”” না,,, কখনোই না ,,, সবার আগে আমার আম্মু ,,,
“”” হুম ,,
“”” এই যে কানে ধরছি আর আর এমন হবে না ,,,
“”” হুম ,, মনে থাকবে তো,,,
“”” সারাজীবন,,,,
“”” হুম চলো,,,

রোজাকে নিয়ে অফিসে আসলাম ,,,
রুহী আর তুবা একসাথে ছিলো ,,
রোজা দৌড়ে রুহীর কাছে গেলো,,,

“”” আম্মু ,, স্কুলে কেমন লাগলো ,,
“”” ভালো ,,
“””নতুন কোনো বন্ধু হয় নি ,,,
‘””” হইছে একটা,,, আম্মু ও কে? ( তুবা কে দেখিয়ে দিয়ে )
“”” ও হচ্ছে ,,,
“”” ম্যাম আমি বলি
( রুহীকে থামিয়ে দিয়ে তুবা বললো)
“”” এই মেয়ে তুমি কে,,,
“”” আমি তোমার নতুন বন্ধু ,,,
“”” তাই,,, তুমি কি আমার সাথে খেলবে,,,

তুবা আমার দিকে তাকালো ,,,
আমি ওকে হ্যাঁ সূচক জবাব দিলাম,,,

“”” হ্যাঁ,, আমি তোমার সাথে রোজ খেলবো,,,


তুবা আর রোজা গল্প করছে ,,
নয়ন রুমে আসলো ,,,


“”” কিছু বলবে নয়ন,,,
“”” স্যার অফিসে সবাই বলছিলো,,,
“”” কি বলছিলো,,,
“”” কি হলো নয়ন থেমে গেলে কেন,,, বলো ( রুহী)
“”” যদি অফিস থেকে একটা ট্যুর হতো তাহলে ভালো হতো ,,,
“”” এটা ট্যুর করার সময়,,, অফিসে কতো কাজ,,, যাও কাজ করো,, এখন হবে না ,,,

নয়ন চলে গেল ,,,


অফিসের সময় কেটে গেলো,,
রুহী আমি রোজা বাসায় আসলাম ,,,

রুহী ফ্রেশ হয়ে রান্না করছে ,,
আমি রোজাকে পড়াচ্চি,,,


“”” আম্মু তুমি এগুলো পড় আমি আসছি ,,,
“”” আচ্ছা বাপি,,,

আমি রান্না ঘরে আসলাম ,,,

“”” আমার বউটা কি করে ,,,
( পিছনে জড়িয়ে ধরে )
“”” রান্না করছি,, দেখতেই তো পাচ্ছো,,,
“”” তুবাকে কেমন লাগলো ,,
“”” একদম সুবিধাজনক নয় ,, দূরে দূরে থাকবে ,,,
“”” আচ্ছা ,, থাকবো মেমসাহেব ,,,
“”” আজ তুমি নয়নের সাথে এমন না করলেও পারতে ,,,
“”” আরে এই সময় কেউ ট্যুরে যায়,, কতো কাজ এখন অফিসে ,,,
“”” আমি ওকে বলছিলাম ,,,
“”” তুমি তো আমাকেও বলতে পারতে
“‘”” হুম ,, অনেক দিন কোথাও যাই নি ,, তাই ভাবলাম ,,,
“”” ঠিক আছে মহারানী আপনাকে আর কিছু বলতে হবে না ,,, আমি বুঝে গেছি ,,,
“”” সত্যি ,,,
“”” হুম ,,, কোথায় যাওয়া যায় বলোতো ,,
“”” সুন্দরবন ,,,
“”” সুন্দরবনে যাবে ,,,
“”” “”” হুম ,,, কোনো সমস্যা ,,,
“”” সুন্দরবনে বাঘ আছে ( রোজা)

আমি রুহীকে ছেড়ে দিলাম ,,,
রুহী ওর কাজে মনোযোগ দিলো,,,

“”” আম্মু তুমি কি করে জানো,,
“”” আম্মু বলছে ,,
“”” ওহহ,, তোমার পড়া শেষ ,,
“”” হ্যাঁ বাপি,,

“”‘ তোমরা টেবিলে বসো আমি খাবার দিচ্ছি ,,,


পরের দিন অফিসে গিয়ে সবাই কে ট্যুর এর জায়গায় এবং তারিখ বলে দিলাম ,,,
সবাই অনেক খুশি ,,
তবে তুবা একটু বেশি খুশি ,,,

“”” স্যার আপনি সত্যি অনেক ভালো মানুষ ,,
“”” ধন্যবাদ ,,,
( কিছু না বলেই তুবা আমায় জড়িয়ে ধরলো ,, )
আমি থ হয়ে দাঁড়িয়ে গেলাম ,,,
রুহী আমার দিকে তাকিয়ে আছে ,,,

“”” সরি স্যার,,, নিজেকে কন্ট্রোল করতে পারি নি খুশির কারণে ,,,

আমতা আমতা করে বললাম

“””” ইটস ওকে ,,,
“”” কিছু মনে করেন নি তো


কি আর মনে করবো,,,
বাড়িতে আজ ঘূর্ণিঝড় সৃষ্টি করে দিলি রে বইন,,,


আর দুই একটা পর্ব দিয়ে শেষ করে দিবো ইনশাআল্লাহ ,,,
.
….

সিনিয়র বউ পার্ট-১৫

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *