সিনিয়র বউ ৫ম পর্ব। রোমান্টিক ভালোবাসার গল্প

সিনিয়র বউ
.
৫ম পর্ব
,
ছাঁদের লাইট টা জ্বালা ছিলো তাই আম্মুর কাছে নিজের চোখের পানি লুকাতে পারি নি ,,,

“”” কি রে বাবা কি হইছে ,,,
“”” কিছু না আম্মু ,,,
“”” তাহলে তুই কাঁদছিস কেন,,,
“”” কই না তো,,, চোখে কিছু হয়তো পড়েছে ,,,
“”” তুই ছোট থেকে আমার কাছে কোনো কিছু লুকাস নি,, তবে আজ কেন লুকানোর চেষ্টা করছিস,,,
“”” কিছু হয় নি আম্মু আমার,,,
“”” রুহীর সাথে ঝগড়া হয়েছে ,,,
“”” না,,,
“”” তাহলে ছাঁদে একা একা দাঁড়িয়ে কান্না করছিস কেন ,,,
“”” এবার গেলে অনেক দিন আর আশা হবে না তো তাই ,,,
“”” পাগল ছেলে ,, এর জন্য কেউ কান্না করে ,,,, ঘুমা যা,,,
“”” তুমি যাও আমি আসছি ,,,


আম্মু রুমে চলে গেল ,,,
আমি ছাঁদে বসে থেকে রাত কাটিয়ে দিলাম ,,,

“”” আম্মু আমি আজ চলে যাবো,,,
“”” আজকেই যাবি,,,
“”” হুম ,,,
“”” কখন??
“”” দুপুরে ,,,
“”” আচ্ছা ,,,

বাসায় থাকলে রুহীর সাথে দেখা হবে ,,, কিন্তু ও তো আমার মুখ দেখতে চায় না,, তাই রুহী উঠার আগেই বাইরে চলে আসলাম ,,,
মাঠের মাঝে একা একা বসে আছি ,,,

“”” কি করছো এখানে ,,,
“”” কে? ও অবন্তী তুমি ,,,
“”” হুম ,,,
“”” কোথায় যাও,,,
“”” স্কুলে যাচ্ছি ,,,
“”” ওহহ,,, তোমার সাথে খারাপ ব্যবহার করার জন্য সরি,,,
“”” ইটস ওকে ,,,
“”” আসলে তখন মাথা ঠিক ছিলো না ,,, তাই হয়তো উল্টো পাল্টে বলেছি,,,
“”” আমি কিছু মনে করি নি ,,, তো এখানেই কি বসে থাকবে ,,,
“”” হুম ,,
“”” তার থেকে চলো আমার সাথে হেটে হেটে আমার স্কুলের ঐ দিক থেকে ঘুরে আসো,,,
””’ উমমম,,, আচ্ছা চলো,,,


দুপুরে বাসায় আসলাম ,,,
খাওয়া করে রেডি হলাম ,,, কিন্তু রুহীকে আশেপাশে কোথাও দেখতে পাচ্ছি না ,,,

“”” আম্মু রুহী কোথায়,,,
“”” হয়তো ছাঁদে ,,,

আমি ছাদে আসলাম ,,,
“”” তোমার সাথে আমার কিছু কথা ছিলো ,,,
“”” হুম বল,,,
“”” আমি আর কখনো তোমার সামনে না আসার চেষ্টা করবো ,, কিন্তু তুমি প্লিজ আমার আম্মু আব্বুর খেয়াল রেখো,,,,


রুহী কিছু না বলে ছাঁদ থেকে নেমে এলো,,,
সেদিনের পর থেকে রুহীর সাথে আর কথা হয় নি ,,,
তবে রোজ আম্মুর থেকে ওর খোঁজ খবর নিতাম ,,,

এভাবেই প্রায় চার মাস চলে গেল ,,,

ক্লাস শেষে করে সবে মাত্র রুমে আসলাম ,,,
সাথে সাথেই ফোনটা বেজে উঠলো ,,,
আম্মু হঠাৎ এই সময় ফোন করলো,,,

“”” হ্যা আম্মু
“”” বাবা কই তুই ,,,
“”” কি হইছে আম্মু তুমি কান্না করছো কেন,,,
“”” বাসার সবাই ঠিক আছে তো,,,
“”” রুহী,,,
( রুহীর নাম শুনে কেমন জানি ভিতর টা কেঁপে উঠল,,,, )
“”” রুহী?? কি হইছে রুহীর ,,,
( আম্মু কিছু বলতে যাবে এর আগেই আব্বু ফোনটা হাতে নিয়ে নিলো,,, )
“”” সুমন আমি আব্বু বলছি
“”” আব্বু রুহীর কি হইছে ,,,
“”” তুই তাড়াতাড়ি বাসায় আয় আজ,,,
“”” বলো না আব্বু আম্মু কান্না করছে কেন,,,,
“”” বাসায় আসো,, তারপর সব বলছি ,,,,

আব্বু আমায় কিছু বলার সুযোগ না দিয়েই ফোন কেটে দিলো ,,,
আমি তাড়াতাড়ি রেডি হয়ে বাসায় রওনা হলাম ,,,
বাসায় পৌঁছাতে প্রায় রাত দশটা বেজে গেছে ,,,

“”” আব্বু কি হইছে ,,,,
“”” এসব বিষয় নিয়ে পরে কথা হবে ,,, ফ্রেশ হয়ে খেয়ে নাও ,,,
“”” গলা দিয়ে এখন কিছু নামবে না,,, আগে বলো কি হইছে ,,, আর রুহী কোথায়,,,

আম্মু আমার দিকে কিছু একটা এগিয়ে দিলো,,,

“”” কি এটা আম্মু ,,,
“”” ডিভোর্স পেপার,,,,
“”” মানে ,,,
“”” রুহী তোকে ডিভোর্স দিছে ,,,

( কথাটা শুনে আমি নিজের কান কে বিশ্বাস করতে পারছি না )
“”” কিন্তু কেন,,,,
“”” সেটা তো আমরা তোকে বলবো কেন,,,, এমন পরীর মতো একটা মেয়ে তোকে ডিভোর্স দিলো কেন,,,


এরপর আমি আম্মু আব্বু কে বাসর রাত থেকে শুরু করে প্রায় সব কথাই বলি,,, ,,

“”” এসব কথা তুই আমাদের এতদিন বলিস নি কেন ,,,
“”” কারণ আমি চাই নি তোমরা কষ্ট পাও,,, কারণ তোমরা ওকে নিয়ে অনেক সুন্দর সময় পার করছিলে,,, চিন্তা করো না আম্মু আমি ওকে খুঁজে নিয়ে আসবো,,,
“”” ওকে আমরা নিজের মেয়ের মতো রাখলাম আর ও কি না আমাদের ছেড়ে চলে গেল ,,,
“”” সুমন তুই ওকে নিতে যাবি না ,,, যদি ও কখনো নিজের ভুল বুঝতে পারে এবং ফিরে আসে তবে ওকে ফিরিয়ে দিস না,,, আজ নয়তো কাল ও ঠিকই ফিরে আসবে,,,
“”” আচ্ছা আব্বু ,,,
“”” এই চিঠি টা ও তোর জন্য রেখে গেছে ,,,


চিঠিটা হাতে নিয়ে ছাঁদে আসলাম ,,,
আজ রুহীকে খুব ঘৃণা হচ্ছে ,,,
আমার ভালোবাসা না হয় বুঝলো না,,, কিন্তু আব্বু আম্মুর ভালোবাসাটাও বুঝলো না ,,,
চিঠিটা কি খুলবো নাকি ফেলে দিবো,,,
আব্বু যখন দিয়েছে তখন পড়ে দেখি,,,
চিঠি টা মনে হচ্ছে আগে খুলেছিলো কেউ ,,,


চিঠি “””” জানি না কি বলবো,, কোথায় থেকে শুরু করবো,,, আমি জানি তুমি আমায় অনেক ভালোবাসো,,, আমি চলে যাওয়ায় অনেক কষ্ট পাচ্ছো,,, হয়তো আব্বু আম্মু ও অনেক বেশি কষ্ট পাচ্ছে,,, আমারও অনেক কষ্ট হচ্ছে ,,, কেন জানো,,, আমিও তোমায় অনেক ভালোবাসি ,,, আব্বু আম্মু কেও অনেক ভালোবাসি ,,, কিন্তু আমি তোমাদের সবাইকে ঠকাতে পারবো না জন্য সবাইকে ছেড়ে চলে আসছি,,, বিয়ের কয়েক দিন আগে আমি শপিং করে আসার সময় মানুষ নামে কিছু জঙ্গলী পশুর লালসার শিকার হই,,, যেটা আমি তোমায় অনেক বার বলতে চেষ্টা করছি কিন্তু পারি নি,,, তাই জন্য তোমায় ইগনোর করছি ,, আমি জানি তুমি অনেক ভালো একটা ছেলে ,,, কিন্তু তবুও আমি দিনের পর দিন তোমায় কষ্ট দিয়েছি ,, এর জন্য আমায় ক্ষমা করে দিও,,, তোমাদের বাসায় সবার আদর পেয়ে ভুলেই গেছলাম আমি আমার অপূর্ণতার কথা ,,, তুমি জানো যেদিন অবন্তীর সাথে তুমি ছাঁদে কথা বলছিলা আমার খুব রাগ উঠছিলো,,, তবে হ্যা অবন্তী খুব ভালো মেয়ে তোমায় অনেক সুখী রাখবে তুমি ওকে বিয়ে করে নিও,, আর আমায় কখনো খোঁজার চেষ্টা করো না,,, আর একটা কথা ,, গত কয়েক দিন আগে আমি ডাক্তারের কাছে গেছলাম ,, ডাক্তার বলছেন আমি প্রেগন্যান্ট ,,, শুনে অনেক খুশি হয়েছিলাম,, কিন্তু দুর্ভাগ্য তোমার খুশি মুখ টা দেখতে পারলাম না ,,, তোমার এই স্মৃতি টা নিয়ে সারাজীবন কাটিয়ে দিবো,, ভালো থেকো,, আর আব্বু আম্মু কে তাদের নতুন সদস্যের কথা জানাইও,,, ভালো থেকো,,,

চিঠিটা পড়তে সময় চোখ দিয়ে কখন পানি গড়িয়ে পড়ছে বুঝতে পারি নি ,,,
কান্নার মাঝে মুখে হাসি ফুটেছে
আমি বাবা হবো ,,,
পাগলী একটা বার তো বলতে পারতে আমায়,,,
বললে আজ সবাই একসাথে কতোই না আনন্দ করতাম ,,,
আব্বু কে তো জানাতে হবে ,,
দৌড়ে আব্বুর রুমে আসলাম ,,

“”” আব্বু আমি বাবা হবো,,,
“”” সেটা তো আমি ও জানি কিন্তু রুহীই তো নেই ,,,
( খুব বেশি খুশির কারণে কিছু সময়ের জন্য ভুলেই গেছলাম রুহী আমাদের সাথে নেই )
“”” আমার একমাত্র নাতিকে আমি দেখতে পারবো না , ,
“”” কান্না করিও না আম্মু পৃথিবীর যেখানেই থাকুক না কেন আমি খুঁজে বের করবোই ,,,
.
..

….
সিনিয়র বউ
.
“” আমার সন্তান কে একটা নজর দেখার জন্য হলেও আমি রুহীকে খুঁজে বের করবো ,,, এরপর ওর ভুল টা শুধরে দিবো
এরপরের দিন আমি মেসে চলে আসলাম ,, এবং তখন থেকেই শুরু হলো রুহী কে খুঁজে বের করার ব্যার্থ চেষ্টা ,,,
যে হারিয়ে যায় তাকে খুঁজে বের করা সম্ভব ,,
কিন্তু যে নিজেই হারিয়ে যায় তাকে কি করে খুঁজে বের করবো???
তবুও রুহীকে আমার খুঁজে বের করতেই হবে ,,,
আমার জন্য না আমার পরিবার এবং আমার সন্তানের জন্য ,,,

এরপর রুহীকে বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন ভাবে খুঁজে বের করার চেষ্টা করি কিন্তু কোথাও পাওয়া যায় নি,,,

অনেক দিন কেটে গেল ,,,
রুহীর কথা চিন্তা করে আমার পরিবার প্রায় হাসতে ভুলে গেছে ,,,
কারণ তারা কোনো বউমা নয় তারা একটা মেয়ে পেয়েছিলো তাদের ,,,

বিভিন্ন জায়গায় যাওয়ার কারণে অনেক মানুষের সাথে পরিচয় হয়েছে ,,
এর মাঝে একজন অনেক ধনী মানুষ ,, তার বিপদের সময় আমি রক্ত দিয়ে তার জীবন বাঁচিয়েছি ,,
এর জন্য তিনি আমায় তার পরিবারের একজন মনে করেন,,,
তার পরিবারে শুধু তিনি আর তার বউ,, ,, তাদের কোনো সন্তান নেই ,,, সন্তান না থাকার যে যন্ত্রণা কতটা তা তাদের দেখে বোঝা যায় ,,, এতো কোটি কোটি টাকা থাকার পরও তাদের যেন কোনো সুখ নেই ,,,
আর আমার সন্তান থাকা সত্ত্বেও আমি তার মুখ টা আজও দেখতে পারলাম না,,, আমার থেকে অভাগা আর কেউ আছে বলে মনে হয় না ,,,
বিভিন্ন জায়গায় তাদের ব্যাবসায়িক সাইট আছে ,,,
আমাদের ভার্সিটির পাশেই তার একটা অফিস আছে ,,,
তিনি ঐ অফিসের দায়িত্ব আমায় দেন,,,
যদিও বা আমি নিতে চাই নি পড়াশোনা করতে পারবো না বলে তবুও তিনি দিলেন ,,,


দেখতে দেখতে প্রায় অনার্স শেষ হয়ে গেল ,, এখন আমি ওনার অফিস সামলাচ্ছি আর রুহীকে খুঁজছি ,,,
মাঝে মাঝে বাসায় যেতাম ,,, বাসায় গিয়ে রুহীদের বাসা গিয়ে শুনে আসি ওর কোনো খোঁজ পেলো কি না,,,,,,


আজ সকাল বেলা হঠাৎ ঐ আংকেল ফোন দিছে ,,,

“” হ্যা আংকেল বলেন ,,,
“”” সুমন তুমি আজ ঢাকায় চলে আসো,,,
“”কিন্তু কেন??
“”” আসো তারপর বলছি ,,,
“”” আচ্ছা ,,

দুপুরের দিকে ঢাকায় রওনা হলাম ,,
পরের দিন সন্ধ্যায় আংকেল এর বাসায় বসে আছি ,,,

“”” আংকেল আপনি হঠাৎ করে ঢাকায় ডাকলেন যে,,,
“” আমাদের নতুন একটা অফিস হয়েছে কক্সবাজারে সেটা তো তুমি জানো,,,
“”” হুম ,,, তো,,
“” ঐ অফিস টা তোমাকে দেখতে হবে ,,
“”” কিন্তু এই অফিস টা,,,
“”” ওটা তে আমি অন্য কাউকে সেটেল করিয়ে দিবো,,, নতুন অফিস তো অনেক সমস্যা হতে পারে ,, নিজের মানুষ ছাড়া ওসব কেউ সামলাতে পারবে না,,,
“”” তো এখন আমি কি করবো ,,,
“”” তুমি আগামী সপ্তাহেই কক্সবাজার চলে যাও,,, দুই একদিন সমুদ্র দেখে অফিসে দেখা শোনা করো,,,
“” আচ্ছা ,,,


দেখতে দেখতে একসপ্তাহ কেটে গেল,,
আজ কক্সবাজার আসলাম ,,,
একজন ছেলে বয়সে আমার মতোই হবে সে সব সময় আমার সাথে ছিলো,,,

“”” স্যার এটা আপনার বাসা,,, আজ থেকে আপনি এখানেই থাকবেন ,,,
“”” ওহহ,, আচ্ছা ,,,
“”” কাল কি আপনি সমুদ্রের পারে ঘুরতে যাবেন ,,,
“”” না,, কাল অফিসে যাবো,, সবাইকে জানিয়ে দাও,,,
“”” আচ্ছা স্যার,,,
“”” অফিস আর সমুদ্র সৈকত এর দুরত্ব কত??
“” এই দুটোর মাঝে আপনার বাসা,,,
“” ওহহ,, তুমি কি আমার পিএ ,,,
“” না স্যার,, আপনার পিএ হিসাবে একজন সুন্দরী মেয়ে কে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে ,,, ,,,
“”” ওহহ আচ্ছা ,,,


পরের দিন অফিসে গেলাম ,,,
সবাই ফুল দিয়ে আমায় আমন্ত্রণ জানায় ,,

“”” স্যার ইনি হচ্ছেন আপনার পিএ,, মিস রুহী,,,
( নামটা শুনে শরীরের লোম দাঁড়িয়ে গেলো,,, পিছনে ফিরে তাকাতেই আমি ৪৪০ ভোল্টের শক খেলাম,,, এতো রুহী,,, যাকে আমি এতো দিন ধরে খুঁজে আসছি,,,,, )
রুহীও আমায় দেখে চোখ প্রায় কপালে ,,,
ওর চোখে পানি টলমল করছে,, এই গড়িয়ে পড়লো বোধহয় ,,,
রুহী দৌড়ে চলে গেল ,,,


আমি আমার কেবিনে আসলাম ,,,
মনে মনে আংকেল কে অনেক ধন্যবাদ দিলাম,,,
ওনার জন্য আমি আমার হারিয়ে যাওয়া ভালোবাসা খুঁজে পেলাম,,,

ফোন বের করে আম্মু কে ফোন দিলাম ,,,

“”” আম্মু আমি পেয়ে গেছি,,
“”” কি পেয়েছিস,,
“”” রুহীকে পেয়ে গেছি,,
( হঠাৎ করেই আম্মু চুপ হয়ে গেল ,,, )
“” সত্যি পেয়েছিস বাবা,,,
“”” হুম আম্মু,,
“”” কেমন আছে প,, আমার নাতি নাকি নাতনী হয়েছে ,,,

“”” আসবো স্যার,,,

“”” আম্মু আমি পরে কথা বলছি,,,

“” হুম আসো,,,
“”” স্যার আমি আপনার পিএ রুহী,,,
“”” কেমন আছো,,,
“” জ্বি স্যার ভালো,,
“”” কেন এমন করলে আমাদের সাথে ,,,
“” স্যার আপনার কোথাও ভুল হচ্ছে ,, আমি আপনার পিএ,,,
( রুহীর মুখে এমন কথা শুনে অনেক টা চমকে গেলাম )
“”” আপনি আমার সাথে শুধু অফিশিয়াল কথা বলবেন ,, এতে আমি বেশি খুশি হবো,,, আশা করি বুঝতে পেরেছেন ,,,
“”” হুম ,,,
“”” কোনো প্রয়োজন হলে আমায় জানাবেন ,,,
“”” হুম ,, আচ্ছা ,,,

রুহী চলে গেলো,,
রুহীর এমন আজব ব্যবহার আমায় অবাক করে দিচ্ছে ,,
ও এমন ভাব করছে মনে হয় প আমায় চিনেই না,,,
ঠিক আছে আমিও দেখি তুমি কতদূর যেতে পারো,, কতটা সহ্য করতে পারো,,,
তোমায় তো ফিরিয়ে নিয়ে যাবোই,,,
.
..

….

..
.
To be continue

সিনিয়র বউ ৬ষ্ট পর্ব

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *