সিনিয়র বউ Part-8 | অভিমানী ভালোবাসার গল্প – সিনিয়র বউ

সিনিয়র বউ
৮ ষ্টম পর্ব
,
নিজের মেয়ের মুখে বাবা ডাকের পরিবর্তে আংকেল ডাকটা যে এতো বেশি কষ্ট দেয় তা আজ বুঝতে পারলাম ,,,
আজ মনটা খুব করে চাইছে রোজার মুখ থেকে একবার আব্বু ডাক শুনতে ,,,
হাসপাতাল থেকে বের হয়ে সোজা বাসায় আসলাম ,,,
বাসায় এসে ফ্রেশ হয়ে আব্বুকে ফোন দিলাম ,,,

“”” হ্যালো আব্বু,,,
“”” হুম বল,,,
“”” গাড়ি পাঠিয়ে দিচ্ছি আপনারা সবাই চলে আসেন,,,
“”” আমরা রুহীর বাসায় যাবো,,, তুই তোর টাকা বাড়ি গাড়ি এসব নিয়ে থাক,,,

আব্বু আমায় কথা বলার সুযোগ না দিয়েই ফোন কেটে দিলো ,,,
সবাই শুধু আমায় ভুল বুঝছে,,,
দোষ না করেও বার বার আমি অপরাধী হচ্ছি,,,

পরের দিন অফিসে গেলাম ,,,
অফিসে একটা ফাইল দেখছি,,,,
এমন সময় আব্বু আসলো,,,

“”” আমরা কাল রুহীকে নিয়ে বাসায় চলে যাবো,,,

আব্বুর কথা শুনে আনন্দে ভিতরটা ভরে গেল,,,
এতো দিন পর আমাদের বাসা আবার তারার মতো জ্বলে উঠবে ,,,

“”” তাহলে ভালোই হয়,,, আমিও যাই,,,
“”” আপনার যাওয়ার দরকার নেই ,,, আমি আসছি রুহীর হয়ে কিছু দিন ছুটির আবেদন করতে
“”” আব্বু তুমি আমার সাথে এমন করে কথা বলছো কেন ,,,
“”” আপনি আমার মেয়ের অফিসের বস,,, আপনার সাথে তো এভাবেই কথা বলতে হবে ,,,

কিছু একটা বলতে গিয়েও থেকে গেলাম,,,
মুখ দিয়ে কোনো কথা বের হচ্ছে না ,,
তবুও কাঁপা কাঁপা কন্ঠে বললাম ,,,

“”” আমি তো তোমার ছেলে ,,,
“”” যে নিজের দায়িত্ব ঠিক মতো বোঝে না ,, পালন করতে পারে না ,, সে আমার ছেলে ??? আগে নিজের কর্তব্যটা পালন করতে শিখো,,,
“”” কিন্তু আমি কি এমন করলাম,,,
“”” নিজের বউয়ের প্রতি অবহেলা সন্তান এর প্রতি অবহেলা ,,, এটা আপনার কর্তব্য পালন,,,,
“”” আমি প্রতিটি মুহূর্তে ওদের খোঁজ নেয়ার জন্য ফোন দিছলাম,,,
“”” থাক আপনাকে কিছু বলতে হবে না ,, এত দিনে বুঝলাম শুধু মাত্র আপনার অবহেলার জন্য আমি একবার আমার মেয়েকে হারিয়েছি,, এবার তা শুধে আসলে ফিরে পাইছি,, আর হারাতে চাই না ,,,,
“”” আব্বু তুমি প্লিজ এমন করে কথা বলো না ,,, আমার অনেক কষ্ট হচ্ছে ,,,
“”” আপনি কি ছুটি দিবেন না কি না ,,,,

শুরু মাত্র একটা দীর্ঘ নিশ্বাস ত্যাগ করা ছাড়া আর কিছু করার নেই ,,,

“”” ঠিক আছে ,, আপনার যতোদিন ইচ্ছে ছুটি নেন,,,
“”” ধন্যবাদ ,,, আর যেদিন আপনি আপনার দায়িত্ব টা বুঝতে পারবেন সেদিন কারো স্বামী হতে আসবেন,,,,


আব্বু চলে গেল,,,
জানিনা আল্লাহ আমার সাথে এটা কোন গেম খেলতে শুরু করলো ,,,
যে গেমের শুরু শেষ কিছুই বুঝতে পারছি না ,,,

আজ কয়েক দিন ধরে রুহী অফিসে নাই,,,
অফিস টা কেন জানি ফাঁকা লাগছে ,,,
খোঁজ নিয়ে জানলাম ওরা বাসায় গেছে ,,,

রাতে আম্মু কে ফোন দিলাম ,,

“”” আম্মু কেমন আছো ,,,,
“”” ভালো,, তুই ,,,
“”” ভালো ( কান্না চেপে রেখে) বাসায় সবাই মিলে অনেক মজা করছো তাই না,,,
“”” হুম ,,,
“”” তাহলে আমায় কেন এই আনন্দ থেকে বঞ্চিত করছো,,,
“”” এটা তোর আব্বু কে বল,, আমি কিছু জানি না ,,,
“”” হুম ,, রাখি আম্মু ভালো থেকো,,,
“”” হুম ,,,
“”” রোজা আর রুহী কেমন আছেন,,,
“”” ভালো,,,
“”” একটু রুহীর সাথে কথা বলতে পারবো,,,
“”” দাঁড়া ডেকে দিচ্ছি,,,

একটু পরে ,,

‘”‘ কিছু বলবে ??
“”” কেমন আছো ,,,
“”” ভালো,,,
“””” তোমরা আমার সাথে এমন করছো কেন ??
“”” দেখো তোমার আর আমার ডিভোর্স হয়ে গেছে ,, সো এখন আর মায়া বাড়িয়ে লাভ নাই ,,,
“”” ডিভোর্স ?? হাহাহা,,,
“”” হাসছো কেন ,,,
“”” তুমি কি এখন আমার রুমে ,,,
“”” হুম ,,,
“”” আলমারি খুলে দেখো,,,
“”” তুমি ডিভোর্স পেপারে এখনো সাইন করো নি কেন ,,,
“”” তোমায় ফিরে পেতে চাই বলে,,, কিন্তু দুর্ভাগ্য দেখো তুমি আমায় ফিরিয়ে নিতে চাও না ,,, ,, যাকে জীবনে এতো ভালোবাসলাম সে আমায় ঘৃণা করে ,,, আর আমার পরিবারটাও দেখো আমায় পর করে দিয়ে তোমায় আপন করে নিয়েছে ,,, ,,,
“”” কিন্তু,,,,

ফোনটা কেটে দিলাম ,,,
কারণ কথা বলার মতো অবস্হা আমার নেই ,,,

শুধু একটা মেসেজ পেলাম
,,, সব কিছুর জন্য আমি দুঃখিত ,,, আমি আগামীকাল ফিরবো,,,


পরে আর কথা বলি নি,,
এরা কখন কি করে আমি কিছু বুঝতে পারছি না ,,

আজ রুহী অফিসে আসলো,,,
রুমে এসেই দরজা লক করে দিলো,,,
আমি শুধু ওর দিকে তাকিয়ে আছি ,,,,

“”” দরজা বন্ধ করলে কেন,,,
“”” তোমার সাথে আমার কিছু কথা আছে ,,,
“”” বলো,,, এখানে না,,, আগামী সোমবার রোজার জন্ম দিন ,, বাসায় আসিও,,, সবার আগে তোমায় ইনভাইট করলাম ,,,
“”” আমি তোমাদের ব্যবহার এর কিছু বুঝছি না ,,,
“”” ওই দিন আগে আসে,,, সব বুঝতে পারবে ,,, আর হ্যাঁ আমার শ্বশুর শাশুড়ী আমার বাসায় আসছে ,, তাই আমি অফিসে আসতে পারবো না ,,,

না জানি ঐ দিন আবার কি বলে,,
সব কিছু কেমন যেন রহস্য মনে হচ্ছে ,,
এই রহস্যের গভীরতা বুঝতে পারছি না

[ads1]

আজ শনি বার,, সোমবার রোজার জন্ম দিন,,, সকাল বেলা অফিসে বসে বসে ভাবছি কি গিফট করবো,,,
গিফটা তো অবশ্যই স্পেশাল হতে হবে ,,

“”” আসবো স্যার ,,
“”” ও নয়ন,,, আসো,, আমি তোমাকেই ডাকতে চাইছি,,,
“”” কেন স্যার কোনো দরকার ,,,
“”” হুম ,, আমায় একটা আইডিয়া দিতে হবে,,,
“”” বলেন স্যার যথাসাধ্য চেষ্টা করবো ,,,
“”” একটা ছোট মেয়েকে জন্ম দিনে কি গিফট করা যায়,,,
“”” কিছু খেলনা দিলেই তো হচ্ছে ,,,
“”” সেটা হলে তো আমি নিজেই পারতাম ,,, তোমায় বলতে হতো না ,,,
“”” তাহলে স্যার ,,,
“”” গিফট টা স্পেশাল হতে হবে ,,,,
“”” সেটা স্যার আমি বলতে পারবো না ,,,,
“”” কেন পারবে না ,, মোটা মাথায় কি আছে তোমার,,,
“”” জ্বি স্যার ,,,
“”” বাদ দাও ,,, কি জন্য আসছো বলো,,,
“”” বড় স্যার আমায় ফোন দিছলো,,
“”” কি বললো???
“”” আগামী সোম বার অফিস ছুটি দিতে ,,,,
“”” কেন,,
“”” সেটা বলে নি ,,,
“”” ভালো,,, তো যাও গিয়ে ছুটি দিয়ে দাও,,,,
“”” এখনি,,,
“”” তুমি যাবে আমার সামনে থেকে ,,,


কি গিফট করবো সেটা ভেবে পাচ্ছি না আর ও ফাজলামি করছে ,,,,,
কোনো কাজেই মন বসছে না ,,
সারাক্ষণ শুধু ভাবছি কখন সোমবার আসবে ,,,
যাই গিয়ে শপিং কমপ্লেক্স গুলো ঘুরে দেখি কি দেয়া যায় ,,,,

নয়ন কে বললাম যে আমি একটু বাইরে যাচ্ছি,, আজ নাও আসতে পারি,,

বাইরে এসে গাড়ি নিয়ে বের হলাম,,,
কিছু দূরে যাওয়ার পর কে যেন ফোন দিছে ,,
ফোনটা হাতে নিয়ে ফোনের দিকে তাকাতেই সামনের একটা ট্রাকের সাথে আমার গাড়ির ধাক্কা লাগে ,,,
এরপর আর কিছু বলতে পারি না,,
জানিনা কতটা সময় অজ্ঞান ছিলাম ,,
যখন চোখ খুললাম তখন আমি নিজেকে হাসপাতালের বেডে দেখি,,,
পাশে রুহী কান্না করছে ,,,
আব্বু আম্মু এমন কি আমার শ্বশুর শ্বাশুড়ি ও আছে ,,,
রোজা পাশেই খেলা করছে ,,,
কেউ খেয়াল করে নি আমার জ্ঞান ফিরছে ,,,
একজন ডাক্তার আসলো,,

“”” এই যে মিষ্টার ,, জ্ঞান ফিরছে ,,,

ডাক্তার একথা বলায় সবাই আমার দিকে তাকালো,,,
রোজা ডাক্তারের কাছে এসে বললো,,,

“””” আচ্ছা ওর কি হয়েছে ,,,
“”” ও তোমার কে হয় বুড়ী ,,,
“”” আমার আংকেল ,,,,
“”” ওহহ,, তেমন কিছু হয় নি,, শুধু পায়ে একটু ব্যথা পেয়েছে ,,,
“”” তাহলে আম্মু কাঁদছে কেন,,,
“”” রোজা এদিকে আসো,,,

( রুহী রোজাকে ডেকে নিয়ে গেল ,, )

“””কি মিস্টার ,, এখন কেমন লাগছে ,,,
“”” মোটামুটি ভালোই ,,,,
“”” গুড,, ঔষধ গুলো নিয়ম করে খেলেই কোনো ব্যাথা থাকবে না ,,,
“”” আচ্ছা ,,, আমায় রিলিজ দিবে কবে,,,
“”” আপনি চাইলে আজকেই যেতে পারেন ,,,
“”” আচ্ছা ,,,


হাসপাতাল থেকে সেদিনেই বাসায় আসলাম ,,,
আমার সাথে রুহী আব্বু আম্মু আসলো,,,
রোজা আর রুহীর আব্বু আম্মু রুহীর বাসায় চলে গেল ,,,

“”‘ রুহী চলো,,,
“”” কোথায় আব্বু ,,,
“”‘ তোমায় বাসায় দিয়ে আসি,,, এতো রাতে তো আর একাই যেতে পারবে না ,,,
“”” আমি আজ এখানে থাকি আব্বু,,, ওর সাথে ,,, আপনারা বাসায় চলে যান,,,
“”” একটু বাইরে আসো তো ,, তোমার সাথে কথা আছে ,,,

রুহী আর আব্বু বাইরে গেল,,
তারা কি যেন বিষয়ে কথা বললো অনেকক্ষণ ,,,
এরপর আব্বু রুহীকে রেখে আম্মু কে নিয়ে রুহীর বাসায় চলে গেল ,,
আমি যদিও থাকতে বললাম ,,
রুহী বললো রোজা নাকি আব্বু আম্মু কে ছাড়া কান্না করবে ,,,
তাই তারা চলে গেল ,,,


“”” রাত তো অনেক হলো,,, ঘুমাবে না ,,,
“”” হুম ,,, পাশের রুমে বেড আছে ,, গিয়ে ঘুমিয়ে পরো,,,
“”” পাশের রুমে যাবো কেন,,, আমি এখানেই থাকবো,,,
“”” তাহলে আমি পাশের রুমে যাচ্ছি ,,,
“”” একা যেতে পারবে ,,
“”” সমস্যা হবে ,,, একটু হেল্প করো,,,
“”” দরকার নেই ,, তুমিও এখানে শুয়ে পরো,,,
“”” এই বেড়ে ,, তোমার সাথে ,,,
“”” কেন আমার সাথে শুতে সমস্যা,,,
“”” ঠিক তা না,, তবে একটু অবাক হলাম ,,,

মাঝ রাতে ঘুম ভেঙে গেলো বুকের উপর কোনো কিছু ভারী ওজনে,,,
চোখ মেলে দেখি রুহী আমার আমার বুকে মাথা রেখে ঘুমিয়ে আছে ,,,
আমি ও রুহীকে জড়িয়ে ধরে ঘুমালাম ,,,


সকাল বেলা মুখের উপর কি শুড়শুড়ি দিচ্ছে ,,,
চোখ মেলে দেখি রুহীর ভেজা চুল ,,,
“”””কি করছো ,,,
“”” তোমায় উঠাচ্ছি,,,, আমি অফিসে যাচ্ছি ,,,
“”” কেন,,,
“”” তুমি তো আজ যেতে পারবে না ,,,, নাস্তা রেডি আছে খেয়ে নিও,,,
“”” আচ্ছা ,,
“”” একটা কথা বলবো,,,
“”” হুম ,,
“”” কতদিন পরে যে এমন গভীর সুখে ঘুমালাম ,,, বলতে পারবো না ,,,
“”” মানে ,,
“”” কিছু না ,, তাড়াতাড়ি খেয়ে নিও,, আমি গেলাম ,,,,


রুহী চলে গেল ,,
যদিও বা উঠতে পারছি না
তবুও কষ্ট করে ফ্রেশ হয়ে খাওয়া করলাম,,,

বাসায় একা একা আর কতক্ষণ বসে থাকা যায় ,,,
বাসায় তো অফিসের একটা ফাইল রাখা আছে ,,
পুরোটা দেখাও হয় নি,,,
কিন্তু কোথায় রাখছি??
মনেই তো নেই ,,,
ড্রয়িং রুমে মনে হয়,,
কিন্তু ড্রয়িং রুমে কোথায়,,,
ওহহ হ্যা ড্রয়িং রুমে তো সিসি ক্যামেরা আছে ,,

আমি ড্রয়িং রুমে ফুটেজ দেখছি এমন সময় দেখি আব্বু আর রুহী ,,,
যদিও বা তাদের কথা গুলো শোনার কোনো ইচ্ছে ছিলো না তবুও শুনলাম ,,,

“”” রুহী তুমি ওর সাথে থাকবে মানে ,,,
“”” আব্বু ও অসুস্থ ,,
“”” তো,, এই সময়টা ও একা থাকলে তবে তোমার প্রয়োজনীয়তা বুঝতে পারবে ,,, ,,,
“”” কিন্তু আব্বু ,,,,
“”” কি কিন্তু ,,, কোনো কিন্তু নেই ,,,,
“”” আসলে আব্বু ওর কোনো দোষ নাই ,,,
“”” মানে ,,,
“”” তুমি শুধু শুধু ওকে ভুল বুঝছো সব দোষ আমার আমি সব কিছু তোমায় বলছি ,,, সব শুনলে সুমনের উপর তোমার ভুল ধারণা ভেঙে যাবে,,,, ,,,
.
..

….

..
.
সিনিয়র বউ Part-9

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *